অতিথি পাখি শিকারসহ নানা অপরাধের জন্য ১ লাখ ৬৫ হাজার টাকা জরিমানা

প্রকাশিত: ৬:১১ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৯, ২০১৯ | আপডেট: ৬:১১:অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৯, ২০১৯
ছবি: টিবিটি

গোপালগঞ্জ সংবাদদাতা: গোপালগঞ্জে অতিথি পাখি শিকার, সরকারী খাল ভরাট এবং মেয়াদ উর্ত্তীন ঔষধ রাখা ও মূল্য তালিকা না থাকার অপরাধে ১ লাখ ৬৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।

সোমবার কাশিয়ানীতে ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক ও কাশিয়ানী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাব্বির আহম্মেদ এবং কোটালীপাড়া উপজেলার ভাঙ্গার হাট বাজারে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর, গোপালগঞ্জের সহকারী পরিচালক শামীম হাসান পৃথকভাবে এ জরিমানা করেন।

ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক ও কাশিয়ানী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাব্বির আহম্মেদ জানান, কাশিয়ানী উপজেলার রাতইল বিলে অতিথি পাখি শিকার করছিলেন তিন যুবক। পরে খবর পেয়ে ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান চালিয়ে ৯টি অতিথি পাখিসহ ওই তিন যুবককে আটক করা হয়।

অতিথি পাখি শিকারের দায়ে বাগেরহাট জেলার মোল্লাহাট উপজেলার জসিম উদ্দিনকে ২০ হাজার, একই উপজেলার তাপস বিশ্বাস ও গোপালগঞ্জ শহরের মিয়াপাড়ার কবিরুলকে ৩০ হাজার করে মোট ৮০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। উদ্ধারকৃত ৯টি পাখির মধ্যে জীবিত দুইটি পাখিকে অবমুক্ত করা হয় ও জবাই করা ৭টি পাখি এতিম খানায় দেয়া হয়। এসময় পাখি শিকারে ব্যবহৃত বন্দুক ও ৮টি তাজা কার্তুজ জব্দ করা হয়।

অপরদিকে, ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের পাশে সরকারী খাল বালু দিয়ে ভরাট করার দায়ে ইমন (২০) নামে এক যুবককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। কিন্তু, টাকা দিতে না পারায় অভিযুক্তকে কাশিয়ানী থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।
অন্যদিকে, গোপালগঞ্জ ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক শামীম হাসান জানান, সোমবার দুপুরে কোটালীপাড়া উপজেলার ভাঙ্গারহাট বাজারে

অভিযান চালানো হয়। এসময় মেসার্স বিষ্ণু চরণ ফার্মেসী থেকে মেয়াদ উত্তীর্ণ ৩৬ বক্স বিভিন্ন ধরনের ঔষধ রাখার দায়ে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এসময় মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষধ জব্দ করে ধ্বংস করা হয়। এছাড়া মূল্য তালিকা না থাকার দায়ে মেসার্স তপন স্টোরকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

এছাড়া, একই বাজারে মাছের খাদ্য মোড়কের গায়ে লেখা খুচরা মূল্য থেকে বেশি দামে বিক্রি করার দায়ে মেসার্স মহিদুল ট্রেডার্সকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।