অনৈতিক যৌন আচরণের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করলেন কিম

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ৫:৫৬ অপরাহ্ণ, মে ৩০, ২০২০ | আপডেট: ৫:৫৬:অপরাহ্ণ, মে ৩০, ২০২০

কিশোর-কিশোরীদের অনৈতিক যৌন আচরণের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন উত্তর কোরিয়ায় প্রেসিডেন্ট কিম জং উন। যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ইউকে এক্সপ্রেসের একটি প্রতিবেদনে এমনটি বলা হয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কিশোর-কিশোরীর মধ্যে অনৈতিক যৌন আচরণকে রাষ্ট্রদ্রোহ কর্মকাণ্ড বলে আখ্যায়িত করেছেন কিম জং উন। আর এ জন্য পুঁজিবাদী প্রভাব এবং চীন সীমান্তের পর্ন পাচারকারীদের দুষছেন কিম।

এছাড়াও কিম বলেছেন, বাবা-মা এবং শিক্ষকরা কিশোর-কিশোরীদের আচরণ নিয়ন্ত্রণ না করতে পারলে শাস্তির সম্মুখীন হবেন। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম রেডিও ফ্রি এশিয়ার প্রতিবেদনে বলা হয়, সম্প্রতি উত্তর কোরিয়ার ক্ষমতাসীন দল কোরিয়ান ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে কিশোর-কিশোরীরা অনৈতিক যৌন আচরণ পাওয়া গেলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

একটি সূত্র বলছে, উত্তর কোরিয়ার সিনুইজু শহরে কিছু কিশোর-কিশোরীদের অনৈতিক যৌন আচরণে লিপ্ত থাকার প্রমাণ পাওয়া গেছে। জানা গেছে ওই কিশোর-কিশোরীরা ক্ষমতাসীন দল কোরিয়ান ওয়ার্কার্স পার্টির যুব সংগঠন কিমিলসাঙ্গিস্ট-কিমজঙ্গিলিস্ট ইয়ুথ লিগের সদস্য।

সূত্র আরো জানায়, অনৈতিক যৌন আচরণ রুখতে শিক্ষার্থীদের ফোনে নজরদারি বাড়ানোর জন্য করার জন্য উত্তর কোরিয়ার স্কুলগুলোর কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছে কিম প্রশাসন। আরেকটি সূত্র জানিয়েছে, যৌন আচরণের বিরুদ্ধে কিমের হুঙ্কারের পর দুশ্চিন্তায় ভুগছেন উত্তর কোরিয়ার শিক্ষকরা। এছাড়া ক্ষমতাসীন দলের কোরিয়ান ওয়ার্কার্স পার্টির যুব সংগঠন কিমিলসাঙ্গিস্ট-কিমজঙ্গিলিস্ট ইয়ুথ লিগের সঙ্গে সম্পৃক্তরাও এ নিয়ে চাপের মধ্যে আছেন।

এদিকে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে উত্তর কোরিয়ায় বন্ধ রয়েছে স্কুল। উত্তর কোরিয়ায় অনৈতিক যৌন আচরণ বেড়ে যাওয়ার জন্য স্কুল বন্ধ রাখাকে দায়ী মনে করছেন অনেকে। সূত্রের দাবি, স্কুল বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীরা বাসায় থাকছেন। আর এ কারণে তারা কৌতুহলবশত বিভিন্ন অশ্লীল বিষয় আরেকজনের সঙ্গে শেয়ার করতে পারছেন। আর এতেই অনৈতিক যৌন আচরণ বেড়ে গেছে।