আগে জীবন বাঁচান, ধর্ম পরে : নুসরাত

টিবিটি টিবিটি

বিনোদন ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:৩৯ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ৩, ২০২০ | আপডেট: ২:০৩:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ৩, ২০২০

করোনা আতঙ্কের জেরে গোটা ভারতজুড়ে চলছে লকডাউন। দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ঘোষণায় এই লকডাউন চলছে। ভারতে ইতোমধ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দুই হাজার ছাড়িয়েছে। এরই মধ্যে দিল্লির নিজামুদ্দিনে তাবলিগ জামাতের মারকাজ মোদি সরকারের চিন্তা আরও বাড়িয়ে দিয়েছে।

১ মার্চ থেকে ১৫ মার্চ অনুষ্ঠিত দিল্লির নিজামুদ্দিনের ওই ধর্মীয় অনুষ্ঠানে অসংখ্য মানুষ উপস্থিত ছিলেন। একশোর বেশি মানুষ এসেছিলেন চীন, ইয়েমেন, বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা, ইন্দোনেশিয়া, সৌদি আরব, আফগানিস্তান ও ইংল্যান্ড থেকে। এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারীর মধ্যে ৩০০ জন ইতোমধ্যেই করোনায় আক্রান্ত বলে জানা যাচ্ছে। মৃত্যু হয়েছে ১০ জনের।

এবার ওই প্রসঙ্গে মুখ খুললেন অভিনেত্রী ও লোকসভার সংসদ সদস্য নুসরাত জাহান। এক জাতীয় সংবাদমাধ্যমকে তিনি বলেছেন, দেশে নানা ধর্মের মানুষের বাস। এই মুহূর্তে কেউ কোনো অনুষ্ঠানে অংশ নিচ্ছে না। মারকাজের ঘটনা আমাদের অনেকটা পিছিয়ে দিয়েছে।’

নুসরাত আরও বলেন, ‘আমাদের দেশ একটা কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে। আমি হাত জোড় করে মানুষের কাছে অনুরোধ করছি, এখন রাজনীতি, ধর্ম ও জাত নিয়ে কোনো কথা না বলতে। গুজব না ছড়িয়ে এখন বাড়িতে থাকাই ভালো। কোয়ারেন্টিনে থাকুন। জীবন বাঁচান, ধর্ম পরে আসবে।’

শুধু তাই নয়, তৃণমূলের এই সাংসদ বলেন, ‘এই পরিস্থিতিতে হিন্দু-মুসলিম রাজনীতি না করে সরকারি নির্দেশ মেনে চলা উচিত। এখন এই সমস্যাটাকে (করোনাভাইরাস) গুরুত্ব দিন। কারণ রোগ কিন্তু ধর্মকে আক্রমণ করে না। আমাদের জন্য এই সময়টা খুব স্পর্শকাতর আর যে কোনো ধর্মেরই আপনি হন, আপনার এই ভয়ঙ্কর ভাইরাসকে বোঝা উচিত।’

প্রসঙ্গত, ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত ভারতে লকডাউন চলবে। তারপরও আক্রান্তের সংখ্যা দেশটিতে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। করোনাভাইরাসের ছোবল পড়েছে বিশ্বের ২০৩টি দেশে। ভারতেও আক্রান্তের সংখ্যা দুই হাজার ছাড়িয়েছে।