আত্মরক্ষার্থে ‘হেলমেট’ পরে পেঁয়াজ বিক্রি!

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: 4:02 PM, November 30, 2019 | আপডেট: 4:02:PM, November 30, 2019

পেঁয়াজ নিয়ে পাগলপ্রায় অবস্থা সারাদেশেই। ভারত পেঁয়াজ পাঠানো বন্ধ করে দেওয়ার পর থেকেই লাগামহীন এর দাম। পরিস্থিতি সুবিধার নয় প্রতিবেশী দেশটিরও। সেখানেও দফায় দফায় বাড়ছে পেঁয়াজের দাম। বাংলাদেশের মতো ভারতেও সরকারিভাবে চলছে পেঁয়াজ বিক্রি।

সেখানকার পরিস্থিতি এমন হয়েছে যে, এখন পেঁয়াজের থেকেও সস্তায় বিক্রি হচ্ছে আপেল। কিন্তু, আপেল তো আর পেঁয়াজের কাজে আসে না। তাই পেঁয়াজের দাম নিয়ে চরম সমস্যায় গোটা দেশের মানুষ। চারিদিকে বন্যা আর উৎপাদন কম হওয়ায় দিন দিন দাম বাড়ছে পেঁয়াজের ।

কিছুদিন আগেও ভারতে ৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হওয়ায় পেঁয়াজ অনেক জায়গাতেই ১০০ টাকার বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে। তাই তরকারির জন্য পেঁয়াজ কাটা তো দূরের কথা, দাম শুনলেই চোখ দিয়ে জল বেরিয়ে আসছে সাধারণ মানুষের।

এই পরিস্থিতি মোকাবেলায় বিভিন্ন রাজ্যে এগিয়ে এসেছে ভারত সরকার। কমমূল্যে সীমিত পরিমাণ পেঁয়াজ বিক্রি করা হচ্ছে প্রশাসনের তরফ থেকে। বিহারের পাটনাতেও মাত্র ৩৫ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি করছে স্টেট কোঅপারেটিভ মার্কেটিং ইউনিয়ন লিমিটেড। কিন্তু, তা বিক্রির সময় যাতে জনরোষের শিকার না হতে হয় তার জন্য মাথায় হেলমেট পরে কাজ করছেন ওই সংস্থার কর্মীরা। যার ছবি সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্ট হতেই হাসির রোল উঠেছে নেটদুনিয়ায়।

শনিবার (৩০ নভেম্বর) ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানায়, জানা যায়, প্রত্যেককে সর্বোচ্চ দুই কেজি পেঁয়াজ দেওয়া হচ্ছে ৩৫ টাকা কেজিতে। তবে বাড়িতে অনুষ্ঠান থাকলে বিশ্বাসযোগ্য প্রমাণ দেখালে পাওয়া যাবে সর্বোচ্চ ২৫ কেজি।

এভাবে পেঁয়াজ বিক্রি করতে গিয়ে অনেক জায়গাতেই ধাক্কাধাক্কি, মারামারি, পদপিষ্টের ঘটনা ঘটেছে। তবে প্রশাসনের পক্ষ থেকে এখনো পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়েন না থাকায় শনিবার হেলমেট পরেই পেঁয়াজ বেচতে এসেছেন সরকারি বিক্রেতারা।

বিহার সরকারের কর্মকর্তা রোহিত কুমার জানান, সরকারিভাবে কম দামে পেঁয়াজ বিক্রির সময় পাথর নিক্ষেপ ও পদপিষ্টের ঘটনা ঘটেছে। সরকার কোথাও পুলিশ দেয়নি। তাই হেলমেট পরে নিরাপত্তার ব্যবস্থা নিজেরাই করেছেন বিক্রেতারা।