‘আদালত স্কুলের মতো, সকাল-বিকেল যেতে হয়’

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:১৭ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৮ | আপডেট: ৯:১৭:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৮

শিশুদের স্কুলে যাওয়ার মতো বিএনপি নেতাকর্মীদের নিয়মিত আদালতে যেতে হচ্ছে মন্তব্য করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেছেন, ‘ঢাকার কোনো নেতাকর্মী বা সমর্থক বাকি নেই যাদের বিরুদ্ধে মামলা নেই। আদালত আমাদের কাছে স্কুলের মতো হয়ে গেছে। সকাল-বিকাল যেতে হয়।’

তিনি বলেন, ‘প্রশাসনের কাজ হলো শুধু বিএনপিকর্মীদের খেদাও। বিএনপির নেতাকর্মীদের ওপর যে নির্যাতন সরকার করছে পাকিস্তানি বাহিনীও কারও বিরুদ্ধে করেনি।’

রোববার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপি আয়োজিত জনসভায় এসব কথা বলেন তিনি।

বিএনপিকর্মীদের সরকার ভয় পায় বলেই আটক করা হচ্ছে- উল্লেখ করে আব্বাস বলেন, ‘দেশে কি রাজতন্ত্র চলছে? কথা বললেই বলেন ষড়যন্ত্র। ষড়যন্ত্র বলছেন কেন? রাজতন্ত্র কায়েম করতে চান? এটা হবে না। ষড়যন্ত্র আপনারা করছেন ক্ষমতায় টিকে থাকতে।’

তিনি বলেন, ‘জাতীয় ঐক্য হবে কি হবে না জানি না। কারণ সরকার ষড়যন্ত্র করছে। কিন্তু বিএনপির সমস্যা নাই। কারণ বিএনপিকে আন্দোলন করতে হবে।’

এদিকে সরকারবিরোধী বৃহত্তর ঐক্য গড়তে স্বাধীনতাবিরোধী জামায়াত ইসলামীকে নিয়ে বিকল্পধারা বাংলাদেশ যে আপত্তি তুলেছে তার জবাব দিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।

নাম উল্লেখ না করলেও বিকল্পধারার প্রতি ইঙ্গিত করে গয়েশ্বর রায় বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়া জাতীয় ঐক্যের কথা বলেছেন। আমরা ঐক্য চাই। কিন্তু এই আন্তরিকতাকে কেউ দুর্বলতা ভাববেন না। যাদের লোক নাই, জন নেই তারা বিএনপিকে চাপ সৃষ্টি করবেন তাহলে জনগণ থুথু ফেলবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘রাজপথে যেই থাকবে তার সাথেই ঐক্য হবে। রাজপথে যদি শয়তানও থাকে, তার সঙ্গেও ঐক্য হবে।’

গয়েশ্বর বলেন, ‘বিএনপি ঐক্যের জন্য প্রস্তুত। খালেদা জিয়ার ডাকে যে ঐক্যযাত্রা শুরু হয়েছিল, সেই ঐক্য মানুষের মনে আশার তৈরি করেছিল। সেই ঐক্যের জন্য বিএনপি প্রস্তুত। এই ঐক্যে অনৈক্যের সুর বাজলে জনগণ থুথু দেবে।’

স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য মঈন খান বলেন, ‘সবাইকে ঐক্যবদ্ধ করে আওয়ামী লীগকে একঘরে করে দিতে হবে।’