আন্তর্জাতিক শিশু শান্তি পুরস্কার পেলেন গ্রেটা

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:৫৪ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ২২, ২০১৯ | আপডেট: ৯:৫৪:পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ২২, ২০১৯

পরিবেশ আন্দোলনে বিশেষ ভূমিকা রাখায় আন্তর্জাতিক শিশু শান্তি পুরস্কার পেলেন বিশ্বজুড়ে সাড়া জাগানো সুইডিশ জলবায়ুকর্মী গ্রেটা থানবার্গ। খবর ‘রয়টার্স’

অবশ্য গ্রেটা থানবার্গ নিজে উপস্থিত থেকে এই পুরস্কার গ্রহণ করতে পারেননি। তবে এক টুইটার বার্তায় এই পুরস্কার পাওয়ায় অত্যন্ত কৃতজ্ঞ ও সম্মানিত বোধ করছেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

বুধবার (২০ নভেম্বর) গ্রেটার হয়ে পুরস্কার গ্রহণ করেন জার্মান জলবায়ুকর্মী লুইসা মারি নুবা। পুরস্কার গ্রহণের পর তিনি বলেন, জলবায়ু সমস্যাই এখন সবচেয়ে বড় ইস্যু। বিশ্বনেতাদের উচিত জলবায়ু সমস্যা মোকাবিলায় ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করা।

মাত্র ১৬ বছর বয়সে গ্রেটা থানবার্গ বিশ্বে চলমান জলবায়ু আন্দোলনের নেতায় পরিণত হয়েছেন। সম্প্রতি শেষ হওয়া জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে বিশ্বনেতাদের উদ্দেশে অগ্নিঝরা ভাষণ দিয়ে অগ্নিকন্যা খেতাব কুড়িয়েছেন তিনি।

২০১৮ সালের আগস্টে প্রতি শুক্রবার সুইডেনের পার্লামেন্টের সামনে একটি প্ল্যাকার্ড নিয়ে অবস্থান নিয়ে আলোচনায় আসেন গ্রেটা। ওই প্ল্যাকার্ডে লেখা ছিল, জলবায়ুর জন্য স্কুলে ধর্মঘট।

এ কিশোরী জলবায়ু আন্দোলনকর্মীর ডাকে ‘ফ্রাইডেজ ফর ফিউচার’ কর্মসূচিতে সাড়া দিয়েছেন বিশ্বের কয়েক লাখ মানুষ।

গ্রেটা এক বার্তায় জানিয়েছেন, এ পুরস্কারে অত্যন্ত কৃতজ্ঞ ও সম্মানিত বোধ করছেন তিনি। তার পক্ষে পুরস্কার গ্রহণ করেন জার্মান জলবায়ুকর্মী লুইসা মারি নুবার। তিনি বলেন, ‘জলবায়ু সংকটই এ সময়ে সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ।’

অন্যদিকে দিভিনা মালুমকে পুরস্কার দেয়া হয় বোকো হারামের বিরুদ্ধে তার শান্তিপূর্ণ লড়াইয়ের জন্য। তিনি বলেন, ‘ক্যামরুন ও আফ্রিকায় নীতিনির্ধারকরা শিশুদের ভুলে গেছেন।

শান্তি প্রতিষ্ঠার কথা ভুলে গেছেন। আমি সব শিশুদের এ বিষয়ে আওয়াজ তোলার আহ্বান জানাই।’ ২০১৪ সালে শান্তিতে নোবেল বিজয়ী ভারতীয় কৈলাশ সত্যার্থী বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন।

এছাড়া জয়ীরা তাদের আন্দোলনের জন্য ১ লাখ ইউরোও পাবেন। এর আগে এ পুরস্কার পেয়েছিলেন পাকিস্তানের অধিকারকর্মী মালালা ইউসুফজায়ী।

থানবার্গ নিজে উপস্থিত থেকে শান্তি পুরস্কার নিতে পারেননি। কারণ বর্তমানে জাতিসংঘের এক সম্মেলনে যোগ আটলান্টিক পাড়ি দিচ্ছেন তিনি। এর আগে সুইডেন থেকে চিলির উদ্দেশে যাত্রা করেছিলেন গ্রেটা।