আমার গলায় ছুরি ধরেছিলেন ইউনিস: গ্র্যান্ট ফ্লাওয়ার

টিবিটি টিবিটি

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রকাশিত: ৭:১১ অপরাহ্ণ, জুলাই ২, ২০২০ | আপডেট: ৭:১১:অপরাহ্ণ, জুলাই ২, ২০২০

সদ্য পাকিস্তান জাতীয় দলের ব্যাটিং কোচের দায়িত্ব পেয়েছেন পাকিস্তানের গ্রেট সাবেক ক্রিকেটার ইউনিস খান। ইংল্যান্ড সফরে দলের ব্যাটসম্যানদের সঙ্গে নিজের অভিজ্ঞতা ভাগাভাগির পাশাপাশি টিপসও দিবেন ইউনিস। তবে ব্যাটসম্যান হিসেবে ইউনিস কি ব্যাটিং কোচের টিপস শুনতে আগ্রহী ছিলেন? জিম্বাবুইয়ান সাবেক ক্রিকেটার গ্র্যান্ট ফ্লাওয়ারের কথা শুনলে নেতিবাচক উত্তরই সামনে আসবে।

জিম্বাবুইয়ান গ্র্যান্ট ফ্লাওয়ার ২০১৪ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত পাকিস্তান জাতীয় দলের ব্যাটিং কোচের দায়িত্ব পালন করেছেন। আর সে সময় তাঁর সঙ্গে ইউনিস খানের ঘটে যাওয়া এক বিস্ফোরক ঘটনার কথা ক্রিকেট পডক্যাস্টে জানালেন তিনি। বর্তমানে লঙ্কানদের ব্যাটিং কোচের দায়িত্ব পালন করা গ্র্যান্ট ফ্লাওয়ার জানান, ইউনিস খানকে একবার পরামর্শ দিচ্ছিলেন তিনি। আর সেই পরামর্শ মানবেন না বলে এই জিম্বাবুইয়ানের গলায় ছুরি ধরে বসেছিলেন ইউনিস। সে সময় প্রধান কোচ মিকি আর্থার এসে বিষয়টি মধ্যস্থতা করে মিটিয়ে দেন।

ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে গ্র্যান্ট ফ্লাওয়ার বলেন, পাকিস্তান দলকে সামলানো সহজ কাজ নয়। বেশিরভাগ কোচই এতে হিমশিম খেয়েছেন। বিশেষ করে ইউনিস খানকে শেখানো বেশ কঠিন কাজ ছিল।

ঘটনাটি ঘটেছিল ২০১৬ সালে পাকিস্তানের অস্ট্রেলিয়া সফরের প্রথম টেস্টে। সেই ম্যাচের প্রথম ইনিংসে শূন্য রানে সাজঘরে ফিরেছিলেন ইউনিস। পরের ইনিংসেই অবশ্য ঘুরে দাঁড়িয়ে ৬৫ রান করেছিলেন। ওই সফরেই সিডনিতে তৃতীয় টেস্টে ১৭৫ রানের হার না মানা আরেক ইনিংস খেলেছিলেন ইউনিস। যদিও সেই সিরিজটি ৩-০ ব্যবধানে হেরেছিল পাকিস্তানিরা।

তবে ইউনিসকে প্রশংসায়ও ভাসান গ্র্যান্ট ফ্লাওয়ার। তিনি আরও যোগ করেন, ‘উনার দারুণ এক ক্যারিয়ার রয়েছে। উনার ব্যাটিং সামর্থ্যের কাছাকাছি আমি নই। পরিসংখ্যানও সেই কথা বলবে। তিনি টেস্ট ক্রিকেটে পাকিস্তানের পক্ষে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক।’

এদিকে পাকিস্তান দলে কেবল ইউনিস নয় আরও অনেকে তাঁর কথা মানতে চাইতো না বলে জানান জিম্বাবুইয়ান এই সাবেক ক্রিকেটার। তিনি আরেকটি অদ্ভুত চরিত্র হিসেবে ওপেনিং ব্যাটসম্যান আহমেদ শেহজাদের কথা টেনে আনেন। তাকে নিয়ে ফ্লাওয়ার বলেন, ‘সে খুবই সামর্থ্যবান ব্যাটসম্যান, কিন্তু কিছুটা অবাধ্য। প্রতি দলেই অবশ্য এমন অবাধ্য খেলোয়াড় থাকে। মাঝেমধ্যে এটা তাদের ভালো খেলোয়াড় বানায়, মাঝেমধ্যে হয়ে উঠে না।’