আমার ছেলেকে ষড়যন্ত্র করে ফাঁসানো হয়েছে

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৫:৩৮ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০১৮ | আপডেট: ৫:৩৮:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০১৮

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) প্যানেল মেয়র জামাল মোস্তফা বলেছেন, আমার সন্তান মাদক ব্যবসায় যুক্ত ছিল না। তাকে ষড়যন্ত্র করে ফাঁসানো হয়েছে।

শনিবার ডিএনসিসির নগর ভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

এর আগে গত বুধবার রাতে তানজিলা নামে এক নারীসহ ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র হাজী জামাল মোস্তফার ছেলে রফিকুল ইসলাম রুবেলকে গ্রেফতার করে পল্লবী থানা পুলিশ। ওই সময় তাদের কাছ থেকে দেড়শ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। পুলিশ বলছে,

পুলিশের দাবি, গ্রেফতারকৃত ওই নারী রফিকুল ইসলাম রুবেলের স্ত্রী। রুবেল রাজধানীর তালিকাভুক্ত শীর্ষ মাদক গডফাদার। তার স্ত্রী তানজিলাও মাদক ব্যবসায়ী। এদের বিরুদ্ধে মিরপুর মডেল কাফরুল, পল্লবীসহ বিভিন্ন থানায় মাদকের মামলা রয়েছে। এছাড়া ঢাকার ৪৫ জন মাদক গডফাদারদের মধ্যে রুবেল অন্যতম বলেও নিশ্চিত করেছে পুলিশ।

তবে এ ব্যাপারে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র হাজী জামাল মোস্তফা অভিযোগ করে বলেন, রাজনৈতিক প্রতিহিংসার বশে স্থানীয় সংসদ সদস্য কামাল আহমেদ মজুমদার পুলিশকে ব্যবহার করে আমার দুই ছেলেকে প্রতারণামূলকভাবে গ্রেফতার করিয়েছে। এ ছাড়া আমার পুত্রবধূকে গ্রেফতার করার যে দাবি করা হচ্ছে, সে আমার পুত্রবধূ নয়।

এ ঘটনার পরই শনিবার সংবাদ সম্মেলনে আসেন প্যানেল মেয়র হাজী জামাল মোস্তফা। তিনি বলেন, পুলিশের করা মামলায় বলা হয়েছে ২৭ সেপ্টেম্বর ভোর ৫টা ৫৫ মিনিটে ছেলেকে আটক করা হয়। কিন্তু আটক করেছে আগের দিন আনুমানিক রাত ৮টায়। আটকের স্থান হিসেবে দেখানো হয়েছে পল্লবী থানার অধীন। অথচ জায়গাটি মিরপুর থানার অধীন। সময় ও স্থান দুটিতেই অসামঞ্জস্য রয়েছে।

পেনেল মেয়র বলেন, গত ২৬ সেপ্টেম্বর রাত ৮টার দিকে আমার বড় ছেলে রফিকুল ইসলাম রুবেলকে তার বন্ধু পরিচয় দিয়ে কে বা কারা ফোনে ডেকে নেয়। পরে পল্লবী থানা পুলিশ তাকেসহ আরও দুজনকে আটক করে। আটককৃতদের মধ্যে এক নারীও রয়েছে। বিষয়টি জানতে পেরে পল্লবী থানার ওসিকে ফোন করি। পরবর্তীতে থানায় গেলে জানানো হয়, আটককৃতরা মাদক ব্যবসায় যুক্ত।

তিনি বলেন, মাদকের বিরুদ্ধে আমি সবসময় সোচ্চার রয়েছি। এ জন্য নানা ধরনের হুমকি-ধমকির শিকারও হতে হয়েছে। সবার রক্তচক্ষুকে উপেক্ষা করে মাদকের বিরুদ্ধে সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছি। কিন্তু দুঃখের বিষয় সম্প্রতি আমি নিজেই সেই কুচক্রীমহলের শিকারে পরিণত হয়েছি।

সংবাদ সম্মেলনে প্যানেল মেয়র ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন তার স্ত্রী রোকেয়া জামান ও পুত্রবধূ নাহিদা সুলতানা পলি।