আমিরাতে সাধারণ ক্ষমার মেয়াদ বাড়ছে

প্রকাশিত: ৫:৩৩ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৩, ২০১৮ | আপডেট: ৫:৩৩:অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৩, ২০১৮

সংযুক্ত আরব আমিরাতের অবৈধ প্রবাসীদের জন্য ঘোষিত সাধারণ ক্ষমার সময়সীমা দ্বিতীয় ধাপে আরো ১ মাস বাড়ানো হয়েছে। ২ ডিসেম্বর সংযুক্ত আরব আমিরাতের জাতীয় দিবস উপলক্ষে এ দিন থেকে আরো ১ মাস সময় বাড়িয়েছেন আরব আমিরাত সরকার।

সাধারণ ক্ষমা চলতি বছরের আগস্ট মাসে শুরু হয়ে ৩ মাসের সময়সীমা ছিল। অক্টোবরে শেষ হওয়া মেয়াদের পর প্রথম ধাপে ১ মাস সময় বাড়ান আমিরাত সরকার। যার শেষ সময় ছিল ১ ডিসেম্বর। ২ ডিসেম্বর আমিরাতের জাতীয় দিবস উপলক্ষে দ্বিতীয় ধাপে আরো এক মাসের জন্য বাড়ানো হয়েছে।

আমিরাত সরকার আবেদনকারীদের তাদের অবস্থান পরিবর্তন এবং ইউএইতে চাকরি করার আরো একটি সুযোগ দিতে চান। ইউএইজুড়ে ইমিগ্রেশন সেন্টারগুলো ইতোমধ্যে প্রক্রিয়া শুরু করে দিয়েছে। যারা আগেই আবেদন করেছিলেন তাদের কাজ আগে শেষ করা হবে বলে জানানো হয়েছে।
Add Image
কূটনৈতিক মিশনগুলো জানিয়েছে- আমরা কর্মকর্তাদের সঙ্গে সমন্বয় করেছি। এই মেয়াদ বাড়ানোর ফলে অনেক অবৈধ প্রবাসীরা এখনও তাদের অবস্থা সংশোধন করতে আরো একটু সময় পাবেন।

বাংলাদেশের প্রায় ৭ শতাধিক প্রবাসীর দেশ থেকে পাসপোর্ট ইস্যু হয়ে না আসাতে অনেকেই হতাশ ছিলেন। এবার তাদের সেই হতাশায় যেন নেমেছে আশার আলো। তবে দ্রুত সেবা প্রদান করতে বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রতি তারা অনুরোধ করেছেন। কনসুলেট এবং দূতাবাসের পাসপোর্ট সেবা আরো আন্তরিক আর বন্ধুসুলভ এর দাবিও করেছেন তারা।

এদিকে, বাড়ানো সময় কাজে লাগিয়ে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করে প্রবাসে বৈধভাবে বসবাসের সুযোগ নিতে সকল অবৈধ প্রবাসীদের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন বাংলাদেশ দূতাবাস।

উল্লেখ্য, গত ১ আগস্ট থেকে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত সাধারণ ক্ষমার মেয়াদ ছিল। এ সময়ের মধ্যে অবৈধ প্রবাসীদের আবেদন করতে বলা হয়। দ্বিতীয় দফায় ১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ক্ষমার মেয়াদ বাড়ানো হয়।