আমি পরম শিব, আমাকে কোনো স্টুপিড কোর্ট ছুঁতে পারবে না : ধর্ষণে অভিযুক্ত ধর্মগুরু

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ৬:৫৩ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৯, ২০১৯ | আপডেট: ৬:৫৩:অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৯, ২০১৯

ভারতের গুজরাটের আমেদাবাদের এক আশ্রমে একাধিক পথশিশু, ও দরিদ্র শিশুকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের মতো নারকীয় যৌন অত্যাচার করা হয় বলে অভিযোগ রয়েছে স্বঘোষিত ধর্মগুরু নিত্যানন্দের বিরুদ্ধে। তার বিরুদ্ধে রয়েছে অপহরণ মামলাও। আর সেই অভিযোগের মধ্যেও দেশ ছেড়ে পালিয়ে গিয়ে ইকুয়েডরের কাছে একটি ভূখণ্ডে নিজের দেশ গড়েছেন নিত্যানন্দ। এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য় এসে পৌঁছেছে গুজরাট পুলিশের হাতে। এবার সেই ভূখণ্ড থেকে রীতিমতো হুঙ্কার দিচ্ছেন নিত্যানন্দ। এ খবর দিয়েছে, ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

প্রতিবেদনে বলা হয়, নিত্যানন্দের এমন দাবির একটি ভিডিও সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। এতে লোকজনের সামনে তাকে বলতে দেখা যায়, ‘কেউ আমাকে স্পর্শও করতে পারবে না।’

গুজরাট পুলিশের দাবি, আমেদাবাদ আশ্রমে শিশুদের অপহরণ ও জোর করে আটকে রাখার মামলায় ওই বিতর্কিত ধর্মগুরুকে তারা খুঁজছে। তবে কোনও আদালত তার বিচার করতে পারবে না বলে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়েছে ৪১ বছরের নিত্যানন্দ।

ধর্ষণের দায়ে অভিযুক্ত এ স্বঘোষিত ধর্মগুরুর ভাষায়, ‘আমি তোমাদের কাছে বাস্তবতা এবং সত্যের প্রকাশ করে আমার অখণ্ডতা প্রদর্শন করবো। এখন আর কেউ আমাকে ছুঁতে পারবে না। আমি তোমাকে সত্যিটা বলি, আমি পরম শিব, বুঝেছো? কোন আদালত সত্য প্রকাশের জন্যে আমার বিচার করতে পারবে না। আমি পরম শিব।’ সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে পাগড়ি এবং ধর্মগুরুর সাজে সজ্জিত নিত্যানন্দকে এসব কথা বলতে শোনা যায়।

ভিডিওটি ২২ নভেম্বর থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। এতে দেখা যাচ্ছে কোনও অজ্ঞাত স্থান থেকে ওই দাবি করছে সে।

ভক্তদের উদ্দেশে তাকে বলতে শোনা যায়, ‘এখানে যারা উপস্থিত হয়ে আমার প্রতি নিজেদের আন্তরিকতা এবং আনুগত্যের প্রকাশ করছে… আমি প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি, তোমাদের সবার আর কখনোই মৃত্যু হবে না।’

হিমালয় পর্বতমালার অংশ তিব্বতের কৈলাস পর্বত। হিন্দুদের বিশ্বাস, শিব ও তার সহধর্মিনী দুর্গা এবং কার্তিক-গণেশ ও শিবের অনুসারী ভক্তরা এ পর্বতে বাস করেন। এ পর্বতে যেহেতু ভগবানের বাস, তাই সেখানে যাওয়া নিষিদ্ধ। নিজেকে শিব দাবি করা নিত্যানন্দের দাবি, তাঁর ‘দেশ’ আসলে কৈলাশ এবং সেখানেই সীমানাহীন ‘বৃহত্তম হিন্দু জাতি’র বসবাস।

এদিকে শুক্রবার নিত্যানন্দের পাসপোর্ট বাতিল করেছে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ। নতুন করে পাসপোর্টের জন্যে তার করা আবেদনও প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে। ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র রভীশ কুমার জানিয়েছেন, তিনি নিত্যানন্দকে শনাক্ত করতে বিদেশে থাকা সব ভারতীয় মিশনকে সতর্কবার্তা পাঠিয়েছেন।

এর আগে ২০১০ সালে একবার ধর্ষণের অভিযোগে হিমাচল প্রদেশ থেকে গ্রেফতার হয়েছিল নিত্যানন্দ। কোনও এক অভিনেত্রীর সঙ্গে তার আপত্তিকর ভিডিও ফুটেজও মিলেছে বলে জানিয়েছে এনডিটিভি।