‘আমি প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগকে দেখে কাঁদি’:মান্না

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৬:১৪ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৫, ২০১৮ | আপডেট: ৬:১৪:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৫, ২০১৮

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় নাগরিক ঐক্য আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, আমি কাঁদি। হ্যাঁ, আমি কাঁদি, প্রধানমন্ত্রীকে দেখে কাঁদি। আওয়ামী লীগকে দেখে কাঁদি। আর আমি যদি লিখি, তাহলে চোর বলে লিখতে হবে। লিখতে গেলে শেষ করা যাবে না।

বুধবার (৫ সেপ্টেম্বর) বিকেলে জাতীয় প্রেস ক্লাবে নাগরিক ঐক্য আয়োজিত ‘ইভিএম বর্জন জাতীয় নির্বাচন ও রাজনৈতিক জোট’ শীর্ষক আলোচনা সভায় একথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, এই সরকার চোর। এই সরকারকে জনগণ আর চায় না। আন্দোলনের মাধ্যমে সরকারের পতন ঘটাতে হবে।

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, শেয়ারবাজার, বন-জঙ্গল, পানি, পাথর, কয়লা, জমি-সব খেয়েছে এই সরকার।

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক বলেন, এ সরকারকে জনগণ চায় না। জনগণ বোঝে, কাকে কীভাবে শায়েস্তা করতে হয়। সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে সিলেটে ত্রাস করেছে, খুলনায় করেছে, রাজশাহীতে করেছে। সিলেটে ত্রাস করেও জিততে পারেনি। জনগণ জবাব দিয়েছে।

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ইভিএমের জন্য যে এলসি খোলা হয়েছে, টাকা কই? হিসাব নেয়া হবে। সরকারের পতন ঘটাতে হবে। আমরা সব দলের অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন চাই। সুষ্ঠু, অবাধ নিরপেক্ষ নির্বাচন চাই। এই দাবিতে রাজপথে নামব। আমাদের আন্দোলনের মুখে সরকারকে মাথা নত করতে হবে।

ঐক্যবদ্ধ হয়ে আন্দোলনের ঘোষণা দিয়ে যুক্তফ্রন্ট নেতা মান্না বলেন, আমরা রাজপথে নামব, অপেক্ষা করুন। সবাই মিলে রাস্তায় নামবে হবে। একবার যদি রাজপথে নামতে পারেন একত্রে, তাহলে অত বড় শক্তিধর প্রাণীও ধীরে ধীরে তার ফনা নামাবে। আমাদের সামনে বিজয় ছাড়া কোনো বিকল্প নাই। হারাবার কোনো উপায় নেই। আমরা পরাজয় স্বীকার করতে পারি না স্বৈরাচারের কাছে।

জাতীয় প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে নাগরিক ঐক্যের উদ্যোগে ‘ইভিএম বর্জন, জাতীয় নির্বাচন ও রাজনৈতিক জোট’ শীর্ষক এই আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন মান্না। আলোচনায় অংশ নেন কল্যাণ পার্টির সভাপতি সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক দিলারা চৌধুরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আসিফ নজরুল প্রমুখ।