আসাদের গুপ্তহত্যা চেয়েছিলেন ট্রাম্প

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ৪:৩০ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৫, ২০১৮ | আপডেট: ৪:৩০:পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৫, ২০১৮

টিবিটি আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প গত বছর সিরিয়া প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের গুপ্তহত্যা চেয়েছিলেন। কিন্তু তার প্রতিরক্ষামন্ত্রী গুপ্তহত্যার আহ্বান প্রত্যাখান করেন।

ওয়াটারগেট কেলেঙ্কারি প্রকাশকৃত বিখ্যাত সাংবাদিক বব উডওয়ার্ট তার নতুন বই ‘ফেয়ার: ট্রাম্প ইন দ্যা হোয়াইট হাউজ’ এ এমন তথ্য লিখেছেন বলে আমেরিকার শীর্ষস্থানীয় গণমাধ্যম ‘ওয়াশিংটন পোস্ট’ মঙ্গলবার খবর প্রকাশ করে।

আমেরিকার প্রতিরক্ষামন্ত্রী জিম ম্যাটিস
ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্দেশনা তার শীর্ষ কর্মকর্তারা কীভাবে পাশ কাটিয়ে যান লেখক বইটিতে সেই চিত্র ফুটিয়ে তুলেছেন।

বইটি এখনো প্রকাশ করা হয়নি। তবুও হোয়াইট হাউজ এই বই নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়েছে। ডোনাল্ড ট্রাম্প এখন পর্যন্ত প্রেসিডেন্ট হিসেবে ২০ মাস দায়িত্ব পালন করেছেন।

বইটিতে লেখক বলেছেন, ডোনাল্ড ট্রাম্পের খামখেয়ালি চরিত্রের কারণে আমেরিকার নির্বাহি প্রশাসন স্নায়ুবৈকল্য হয়ে পড়েছে। অসন্তুষ্টির বিস্ফোরণ চলছে দেশটির প্রশাসনে।

বইয়ের লেখা অনুযায়ী, ২০১৭ সালের এপ্রিল মাসে বাশার আল আসাদ বেসামরিক নাগরিকদের ওপর রাসায়নিক হামলা করলে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তার প্রতিরক্ষামন্ত্রী জিম ম্যাটিসের কাছে আসাদের গুপ্তহত্যা চান।

ম্যাটিস দ্রুতই তা করতে ট্রাম্পকে আশ্বস্ত করেছিলেন। কিন্তু গুপ্তহত্যার পরিবর্তে অল্প পরিসরে বিমান হামলা করা হয় যা আসাদকে বিচলিত করেনি।

ম্যাটিস তার সহকর্মীদের বলেছিলেন, ট্রাম্প ৫ম বা ৬ষ্ঠ শ্রেণির ব্যক্তির মতো আচরণ করেছিলেন।

হোয়াইট হাউজ বইটিকে বানোয়াট গল্প বলে উড়িয়ে দিয়েছে।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের প্রেস সেক্রেটারি সারাহ সেনডার্স এক বিবৃতিতে বলেছেন, এই বইটি বানোয়াট গল্প ছাড়া আর কিছুই নয়। সাবেক অনেক খেয়ালি কর্মকর্তার উদ্ধৃতি দিয়ে প্রেসিডেন্টকে খারাপ বলা হয়েছে।

তিনি আক্ষেপ করে বলেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ভালো দিকগুলো যথেষ্ট পরিমাণে গণমাধ্যমে প্রকাশ পাচ্ছে না।

তিনি আরো বলেন, ডেমোক্রেট ও তাদের মিত্র গণমাধ্যমগুলো বুঝতে পারছে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের নীতিগুলো সফলতা পেতে শুরু করেছে। কেউ তাকে ২০২০ সালের নির্বাচনে হারাতে পারবে না। এর আগেও পারবে না।

১৯৬৯ সালে ওয়াটারগেট হোটেলে আঁড়িপাতা কেলেঙ্কারির মাধ্যমে নির্বাচনে জিতে রিচার্ড নিক্সন আমেরিকার প্রেসিডেন্ট হয়েছিলেন।

সেই কেলেঙ্কারির তথ্য পত্রিকায় ফাঁস করে নায়ক বনে গিয়েছিলেন উডওয়ার্ড। পরে ১৯৭৪ সালে প্রেসিডেন্ট নিক্সন পদত্যাগ করতে বাধ্য হন।

সাংবাদিক বব উডওয়ার্ড
সাংবাদিক উডওয়ার্ড তার প্রতিবেদনের জন্য সে সময় পুলিৎজার পুরষ্কার পেয়েছিলেন।

‘ওয়াশিংটন পোস্ট’ পত্রিকা লিখেছে, উডওয়ার্ড বইটি লেখার জন্য শীর্ষ কর্মকর্তাদের সাথে সাক্ষাত করেন। কিন্তু তিনি তাদের আশ্বস্ত করেন যে, কীভাবে তথ্য পেয়েছেন তা প্রকাশ করবেন না।

আরাবিয়ান জার্নাল