আড়াই হাজার কোটিতেও মেসিকে পায়নি ইন্টার!

টিবিটি টিবিটি

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:২৩ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১, ২০২০ | আপডেট: ৯:২৩:অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১, ২০২০

বিশ্ব রেকর্ড গড়ে খেলোয়াড়দের দলে ভেড়ানোর ব্যাপারটা ইতালিয়ান সিরি ‘আ’র কাছে নতুন কিছু না। জুভেন্টাস, ইন্টার মিলান, এসি মিলানের মতো লিগের বড় ক্লাবগুলো ইতিহাসের বিভিন্ন সময়ে দলবদলের বিশ্ব রেকর্ড গড়ে খেলোয়াড় দলে ভিড়িয়েছে।

ইন্টারের কথাই দেখুন, শুধু নব্বইয়ের দশকেই দু-দুবার সবচেয়ে বেশি দাম দিয়ে খেলোয়াড় কেনার রেকর্ডটা ভেঙেছিল তারা। প্রথমে ব্রাজিলের তারকা স্ট্রাইকার রোনালদোকে বার্সেলোনা থেকে নিয়ে এসেছে। দ্বিতীয়বার এনেছে ইতালিয়ান স্ট্রাইকার ক্রিস্টিয়ান ভিয়েরিকে আতলেতিকো মাদ্রিদ থেকে । এরপর ইন্টার দলবদলের বিশ্ব রেকর্ড গড়ে আর কাউকে আনেনি। তাই বলে বিশ্ব রেকর্ড গড়ে যে কাউকে আনার চেষ্টা করেনি, তা কিন্তু নয়।

রোনালদো, ভিয়েরি, জানেত্তি, ব্যাজ্জিও, স্নাইডার, ভেরন, লুসিও কিংবা আদ্রিয়ানোর মতো তারকাদের দলে আনা ইন্টার দলে আনতে চেয়েছিল লিওনেল মেসিকেও। শুধু তা-ই নয়, ১৯ বছর বয়সী মেসিকে দলে আনার জন্য সেই ২০০৬ সালে আকাশছোঁয়া মূল্য দিতেও পিছপা হয়নি।

২০০৬ সালে মেসির প্রতিভা আঁচ করতে পেরেছিলেন ইন্টারের সেই সময়কার সভাপতি মাসিমো মোরাত্তি। ১৯ বছর বয়সী খেলোয়াড়কে পেতে ২৫০ মিলিয়ন ইউরো (বাংলাদেশি মুদ্রায় আড়াই হাজার কোটি টাকার বেশি) খরচ করতে চান। লোভনীয় অর্থ পেয়েও মন গলেনি বার্সা প্রধান হুয়ান লাপোর্তের। তিনি এক বাক্যে ‘না’ বলে দেন ইতালির ক্লাবটিকে।

লাপোর্ত চাইতেন, বার্সার হয়েই দীর্ঘদিন খেলুক মেসি। তাই রাতারাতি ধনী হওয়ার সুযোগ নেননি, ‘মেসির জন্য অনেক ক্লাবের কাছ থেকে প্রস্তাব পেয়েছি। এর মধ্যে ইতালিয়ান সিরিআর ইন্টার মিলান অন্যতম। মোরাত্তি আমাকে ২৫০ মিলিয়ন ইউরোর প্রস্তাব দেয় ওই সময় (২০০৬ সালে)। আমি রাজি হয়নি। এক বাক্যে না বলে দিয়েছি।’