আ. লীগ ক্ষমতায় না আসলে প্রথম দিনেই এক লাখ লোককে হত্যা করবে

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৫:৪০ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩, ২০১৮ | আপডেট: ৫:৪০:পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩, ২০১৮

বিএনপিকে ইঙ্গিত করে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, যদি আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় না আসে প্রথম দিনেই এক লাখ লোককে হত্যা করা হবে। কেউ ঘরে থাকতে পারবে না। অশুভ’র বিরুদ্ধে এক শুভ সমাজ গড়ার জন্য আমাদেরকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে এবং আগামীতে শেখ হাসিনাকে আবার প্রধানমন্ত্রী করতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, ভোলা-বরিশাল ব্রিজ হবে। ভোলায় শিল্প করকারখানা হবে। কিন্তু আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় না এলে সব উন্নয়ন কাজ বন্ধ হয়ে যাবে। আজ রবিবার বিকালে শ্রীকৃষ্ণের জন্মাষ্টমী উপলক্ষে জেলা পূজা উদযাপন পরিষদ আয়োজিত আনন্দ শোভাযাত্রার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভোলার বাংলা স্কুল মাঠে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, আজকের এই দিনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কথা মনে পড়ছে। কারণ বঙ্গবন্ধু তার হৃদয়ে অসাম্প্রদায়িক চেতনা লালন করতেন। বঙ্গবন্ধু সংবিধানে ৪টি মূলনীতির মধ্যে ধর্ম নিরপেক্ষতা রেখেছিলেন।

২০০১ সালে বিএনপি ক্ষমতায় আসার পর ভোলায় সংখ্যালঘুদের ওপর ভয়াবহ অত্যাচার নির্যাতনের চিত্র তুলে ধরে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, হিন্দু মা বোনেরা বাড়িতে থাকতে পারেনি। নিজের সতীত্ব রক্ষা করার জন্য মেয়েরা পানির মধ্যে লুকিয়েছিল।

সেখান থেকে ধরে এনে বিএনপির সন্ত্রাসীরা মায়ের সামনে পাশবিক অত্যাচার করেছে। বর্তমানে বিএনপি খুব শান্তিতে আছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, আমরা কারো ওপর কোনো অত্যাচার করি নাই এবং করবোও না।

মন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশকে উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত করেছেন। আজকে দেশ আন্তর্জাতিক বিশ্বে মর্যাদার আসনে। তিন মাস পর জাতীয় নির্বাচন। আমাদেরকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে দেশবাসী শান্তিতে থাকবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভোলা জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি প্রফেসর দুলাল চন্দ্র ঘোষের সভাপতিত্বে এ সময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, বিশিষ্ট সংবাদিক পীর হাবিবুর রহমান, পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক গৌরাঙ্গ চন্দ্র দে।

উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. মাসুদ আলম ছিদ্দিক, পুলিশ সুপার মো. মোকতার হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক জহিরুল ইসলাম নকিব, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. ইউনুছ, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লব প্রমুখ। পরে মন্ত্রী বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রায় অংশ গ্রহণ করেন।