ইনডেক্সধারী আইসিটি শিক্ষকদের বিষয়ে যা বলছে এনটিআরসিএ

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১০:২৭ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৬, ২০১৯ | আপডেট: ১০:২৭:অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৬, ২০১৯
ফাইল ছবি

বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রায় ৪০ হাজার শিক্ষক নিয়োগের সুপারিশ করেছে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ)। নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে গতবছর জারি করা এমপিও নীতিমালায় উল্লেখিত শিক্ষাগত যোগ্যতার প্রেক্ষিতে আবেদন চাওয়া হয়েছিল প্রার্থীদের কাছ থেকে। বয়স শিথিল করে ইনডেক্সধারীদেরও দেয়া হয় আবেদনের সুযোগ। সে প্রক্ষিতে ৬ মাসের ডিপ্লোমা নিয়ে ইনডেক্সধারী আইসিটি শিক্ষকরা আবেদন করেছিলেন। কিন্তু নিয়োগ না পাওয়ার তারা নিজেদেরকে বঞ্চিত মনে করছেন।

তবে, এনটিআরসিএ বলছে তারা তথ্য গোপন করে আবেদন করেছেন। তাই তাদের যোগদান থেকে বিরত থাকতে বলা হয়েছে।

সুপারিশপ্রাপ্ত শিক্ষকরা দাবি করেছেন, ২০১৮ খ্রিস্টাব্দে জারি করা এমপিও নীতিমালায় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিষয়ে কম্পিউটার বিজ্ঞান বা কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং এ স্নাতক বা সমমানের ডিগ্রী অথবা বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড হতে ৩ বছর মেয়াদি ডিপ্লোমা-ইন-কম্পিউটার সায়েন্স বা সমমান শিক্ষাগত যোগ্যতার কথা উল্লেখ করা হয়েছে। তারা আরও জানান, এমপিও নীতিমালা ২০১৮ এর ১১.১৩ অনুচ্ছেদে স্পষ্ট করে বলা হয়, ইনডেক্সধারী শিক্ষকরা তাদের সমপদে বা সমস্কেলে প্রতিষ্ঠান পরিবর্তন বা উচ্চতর পদে নিয়োগের ক্ষেত্রে নীতিমালার পরিশিষ্ট “ঘ” তে বর্ণিত শিক্ষাগত যোগ্যতা (শ্রেণি/বিভাগ) প্রযোজ্য হবে না; সে ক্ষেত্রে তাদের প্রথম নিয়োগকালীন শিক্ষাগত যোগ্যতা প্রযোজ্য হবে।

এনটিআরসিএ প্রকাশিত একটি বিজ্ঞপ্তিতে কয়েকটি পদে যোগদানের ক্ষেত্রে এমপিও নীতিমালা ২০১৮ এর আলোকে শিক্ষাগত যোগ্যতা যাচাই করে নিয়োগ দেয়ার কথা বলা হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে আইসিটি বিষয়ে ৬ মাসের ডিপ্লোমা ডিগ্রি নিয়ে নিবন্ধনধারীরা নিয়োগের সুপারিশ পেলেও যোগদান করতে পারবে না এমনটা স্পষ্ট করে বলা হয়। কিন্তু ৬ মাসের ডিপ্লোমা ডিগ্রি নিয়ে আইসিটি বিষয়ে ইনডেক্সধারী শিক্ষকদের যোগদানের বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু বলা হয়নি। তাই বিপাকে পরেছেন ৬ মাসের ডিপ্লোমায় ইনডেক্সধারী আইসিটি শিক্ষকরা।

তবে এ বিষয়ে জানতে চাইলে এনটিআরসিএর একজন কর্মকর্তা জানান, ৬ মাসের ডিপ্লোমায় নিবন্ধন সনদধারীরা তথ্য গোপন করে আবেদন করেছেন। এ প্রেক্ষিতে শর্ত সাপেক্ষে তাদের সুপারিশ করা হয়েছিলো। সুপারিশ মানে এই নয় তাদের নিয়োগ দেয়া হয়েছে। শর্তপূরণ না করতে পারলে তারা যোগদান করতে পারবেন না। শর্ত হিসেবে ধরা হয়েছে এমপিও নীতিমালা ও জনবল কাঠামো-২০১৮-কে। আর নীতিমালার শর্ত পূরণ না করে নিয়োগপ্রাপ্ত হলে তিনি এমপিওভুক্ত হতে পারবেন না। এ বিষয়টি আরও স্পষ্ট করা হয়েছে।

কর্মকর্তা আরও বলেন, যদি কোন প্রার্থী শিক্ষাগত যোগ্যতার ক্ষেত্রে মিথ্যা বা ভুল তথ্য দিয়ে সুপারিশপ্রাপ্ত হয়ে থাকেন তাহলে যোগদান করা থেকে বিরত থাকতে অনুরোধ করা হয়েছে। ৬ মাসের ডিপ্লোমায় নিবন্ধন সনদধারী ইনডেক্সধারী শিক্ষকরাও আবেদনের সময় তাদের যোগ্যতার তথ্য গোপন করেছেন। তাই তাদের যোগদানে থেকে বিরত থাকতে বলা হয়েছে। তা হলে মিথ্যা ঘোষণার জন্য আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সুপারিশপ্রাপ্তরা আরো জানান, এনটিআরসিএ প্রথমে ৩৫ বছরের উপরের প্রার্থীদের আবেদন করার সুযোগ দেয়নি। পরবর্তীতে এমপিও নীতিমালা ২০১৮ এর আলোকে ইনডেক্সধারীর বয়স ৩৫ বছর উত্তীর্ণ প্রার্থীদেরও আবেদন করার সুযোগ দেয়া হয়। আমরাতো এমপিও নীতিমালা ২০১৮ এর ১১.১৩ অনুচ্ছেদ মোতাবেক নিয়োগের সুপারিশের দাবি করছি। ৩৫ বছরের উপরের প্রার্থীরা যদি নীতিমালা অনুযায়ী সুযোগ পেতে পারে আমরা কেন নীতিমালা অনুযায়ী যোগদান করতে পারবো না? আমাদের তো শুধু মাত্র প্রতিষ্ঠান পরিবর্তন।