ইন্দোনেশিয়ায় ফের ভয়াবহ সুনামি, ঘরছাড়া প্রায় ৬ লক্ষ মানুষ

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮:১২ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০১৮ | আপডেট: ৮:১২:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০১৮

টিবিটি আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ আবারও ফিরে এলো ২০০৪-এর সেই ভয়ঙ্কর স্মৃতি৷ আবারও সুনামির ধাক্কায় লণ্ডভণ্ড হয়ে গেল ইন্দোনেশিয়ার বিস্তির্ণ অঞ্চল৷ সবচেয়ে বেশি প্রভাব পড়েছে সে দেশের পালু ও ডাঙ্গাল শহরে। প্রথমে ভয়াবহ ভূমিকম্প আর, তারপরেই আছড়ে পড়ল সুনামি৷

সেখানে বসবাসকারী একটা প্রচুর মানুষ ঘর ছাড়া৷ তাঁদের জন্য ত্রাণশিবিরের ব্যবস্থা করেছে সরকার৷ ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কত তা এখনও স্পষ্ট করে কিছুই বলা যাচ্ছে না৷ইতিমধ্যেই ভয়াবহ জলোচ্ছ্বাস ও ভূমিকম্পের জেরে ৩৮৪ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে খবর আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম সূত্রে।

গতকাল, শুক্রবার প্রবল ভূমিকম্পে কেঁপে ওঠে মধ্য ইন্দোনেশিয়ার সুলাবেসিত৷ রিখটার স্কেলে কম্পনের মাত্রা ছিল ৭.৭৷ ঘটনায় মৃত্যু হয় পাঁচ জনের, আহত হন আরও ১০ জন। এরপরেই মধ্য ও পশ্চিম সুলাবেসিতে সুনামির সতর্কতা জারি করা হয়৷ কারণ কম্পনের কেন্দ্রস্থল ছিল ওই অংশ৷ এরপরে সুলাবেসিত থেকে ৮০ কিলোমিটার দূরে পালু শহরে আছড়ে পড়ে সুনামি।

অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে সেখানে বসবাসকারী সাড়ে তিন লক্ষেরও বেশি মানুষকে। সমুদ্রে যেতে নিষেধ করা হয়েছে মৎস্যজীবী ও নাবিকদের৷ বিশাল সামুদ্রিক ঢেউয়ের সঙ্গে জলোচ্ছ্বাস দেখা যাচ্ছে৷ ইতিমধ্যেই সমুদ্রের গ্রাসে চলে গিয়েছে পালু দ্বীপের একটা বড় অংশ৷

ঘটনাস্থলে পৌঁছে গিয়েছেন বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তরের কর্মীরা৷ পালু ও ডাঙ্গাল মিলিয়ে দুই শহরের প্রায় ছয় লক্ষ মানুষ ঘরছাড়া৷ তাঁদের সাহায্যে এগিয়ে এসেছে অনেক আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন৷ উদ্ধার কার্যে নেমেছে সেনাও৷ এখনও খোঁজ মিলছে না অনেকের পরিজনের৷ সমগ্র এলাকা বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন, ব্যাহত যোগাযোগ ব্যবস্থা৷ কেবল ইন্দোনেশিয়াই নয়, পাশাপাশি জাপানেও জারি করা হয়েছে সুনামির সতর্কবার্তা। ইন্দোনেশিয়ার পাশাপাশি, শুক্রবার কম্পন অনুভূত হয় জাপানেরও কিছু অংশে৷ ফলে সেখানেও জারি করা হয়েছে সুনামির সতর্কতা৷