ইরানের সঙ্গে অস্ত্র বাণিজ্যে ‘পড়তে হবে নিষেধাজ্ঞায়’

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:০২ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২০ | আপডেট: ৯:০২:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২০

ইরানের ওপর আরোপিত জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন করে কেউ যাতে দেশটির সঙ্গে অস্ত্র বাণিজ্য না করতে পারে- এ জন্য একটি নির্বাহী আদেশ জারির পরিকল্পনা করছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। গতকাল বৃহস্পতিবার চারটি সূত্রের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানায় বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

একটি সূত্রের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থাটি জানায়, শিগগিরই মার্কিন সরকারের পক্ষ থেকে এ ধরনের একটি নির্বাহী আদেশ আসতে পারে। যার ফলে কোনো দেশ যদি জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ইরানের সঙ্গে অস্ত্র বাণিজ্য করে, তাহলে তাদেরকে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়তে হবে। অর্থাৎ তেহরানের সঙ্গে অস্ত্র বাণিজ্য করা দেশগুলোকে যুক্তরাষ্ট্রে ব্যবসা করতে দেওয়া হবে না।

২০১৫ সালে যুক্তরাষ্ট্রসহ ছয়টি দেশ ইরানের সঙ্গে পরমাণু সমঝোতা চুক্তি করে। জাতিসংঘের মাধ্যমে করা ওই চুক্তিতে স্বাক্ষরকারী অন্য দেশগুলো হলো- যুক্তরাজ্য, জার্মানি, ফ্রান্স, রাশিয়া ও চীন। ওই চুক্তি অনুযায়ী তেহরানের ওপর অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা আনা হয়। যার মেয়াদ আগামী ১৮ অক্টোবর শেষ হবে।

কিন্তু মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই ২০১৮ সালে হঠাৎ করে এ চুক্তি থেকে একতরফাভাবে বের হয়ে যায় যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন সরকার এ পরমাণু সমঝোতা চুক্তি থেকে বের হয়ে গেলেও ইরানের ওপর অস্ত্র নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়াতে জাতিসংঘে ব্যাপক তৎপরতা চালায়। তবে এতে সমর্থন দেয়নি চুক্তিতে স্বাক্ষর করা বাকি পাঁচ দেশ। যার ফলে তেহরানের ওপর অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা টিকিয়ে রাখতে ভিন্ন পথে হাঁটছে যুক্তরাষ্ট্র।

বিশ্লেষকদের মতে, ইরানের ওপর আরোপিত জাতিসংঘের অস্ত্র নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও যাতে কোনো দেশ তেহরানের সঙ্গে অস্ত্র বাণিজ্য না করতে পারে- এ জন্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট এ নির্বাহী আদেশ জারির পরিকল্পনা করছেন।

-২৪ লাইভ নিউজ।