ইসরায়েলি নাশকতার বিরুদ্ধে ইরানের ‘জবাব’

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮:৫০ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৪, ২০২১ | আপডেট: ৮:৫০:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৪, ২০২১

পারস্য উপসাগরীয় অঞ্চলে ইহুদিবাদী ইসরাইলের উপস্থিতির বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছে ইরান। গতকাল (মঙ্গলবার) রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভের সঙ্গে রাজধানী তেহরানে এক বৈঠকের সময় এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন ইরানের প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি।

তিনি বলেন, বাস্তবতা হচ্ছে- মধ্যপ্রাচ্য অঞ্চলে অস্থিতিশীলতা ও উস্কানি সৃষ্টির একটি বড় উপাদান হলো ইহুদিবাদী ইসরাইল। ইরানের প্রেসিডেন্ট আরো বলেন, মধ্যপ্রাচ্যের নিরাপত্তা এবং স্থিতিশীলতা রক্ষা করা জরুরি এবং এজন্য আঞ্চলিক দেশগুলোর সঙ্গে কাজ করতে প্রস্তুত রয়েছে ইরান।

বৈঠকে ড. রুহানি বলেন, মার্কিন সরকারের একাধিপত্যবাদী নীতি মোকাবেলার জন্য আঞ্চলিক সহযোগিতা বাড়ানো জরুরি এবং সেটি হবে কৌশলগত পদক্ষেপ।

তিনি দৃঢ়তার সঙ্গে বলেন, এ অঞ্চলে নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠার বিষয়টি আঞ্চলিক দেশগুলোর ব্যাপার এবং তারাই বিষয়টি দেখভাল করবে। এ সময় তিনি নিরাপত্তা ও সামরিক খাতে ইরান এবং রাশিয়ার মধ্যে সহযোগিতা বাড়ানোর ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

২০১৫ সালে সই হওয়া পরমাণু সমঝোতা প্রসঙ্গে প্রেসিডেন্ট রুহানি বলেন, তেহরান আশা করেছিল অন্যপক্ক্ষগুলো এই সমঝোতা পরিপূর্ণভাবে বাস্তবায়ন করবে। তিনি আরো বলেন, পরমাণু সমঝোতায় যা বলা হয়েছে তার চেয়ে বেশি চায় না ইরান, আবার এর চেয়ে কমও মেনে নেবে না।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন পরমাণু সমঝোতায় ফিরে আসার প্রত্যয় ব্যক্ত করার কারণে এই ইস্যুতে ইরান এবং রাশিয়ার মধ্যে আরো সহযোগিতা জরুরি বলেও মন্তব্য করেন প্রেসিডেন্ট রুহানি।

বৈঠকে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন ইস্যুতে ইরান এবং রাশিয়ার মধ্যে সহযোগিতা বিস্তারের চেষ্টা চলছে। নিরাপত্তাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে দু’দেশের মধ্যকার সহযোগিতার কোন নির্দিষ্ট সীমা থাকবে না বলে মন্তব্য করেন ল্যাভরভ।

পরমাণু সমঝোতায় আমেরিকার ফেরা প্রসঙ্গে সের্গেই ল্যাভরভ বলেন, চলমান সঙ্কটের একমাত্র সমাধান হচ্ছে নিঃশর্ত ও পুরোপুরিভাবে ওয়াশিংটনের ফিরে আসা।

সূত্র: পার্সটুডে।