ইসলামকে বিক্রি করে অরাজকতা সৃষ্টি করতে দেয়া হবে না : ধর্ম প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত: ৬:৩৯ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৫, ২০২১ | আপডেট: ৬:৩৯:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৫, ২০২১
ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান। ছবি: সংগৃহীত

রাজনীতি করতে হলে রাজনীতির মাঠে গিয়ে কথা বলতে হবে; কিন্তু ইসলামকে বিক্রি করে কাউকে অরাজকতা সৃষ্টি করতে দেয়া হবে না বলে মন্তব্য করেছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান।

সোমবার (২৫ জানুয়ারি) দুপুরে ময়মনসিংহ নগরীর এডভোকেট তারেক স্মৃতি মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি। ইসলামিক ফাউন্ডেশন ময়মনসিংহ বিভাগীয় কার্যালয়ের উদ্যোগে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান’র জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটি কর্তৃক গৃহীত কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে বিভাগীয় শহরে ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জীবন ও কর্ম এবং সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় তাঁর অবদান’ শীর্ষক এ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সকল ধর্মীয় গোঁড়ামির বিরুদ্ধে সোচ্চার থাকার আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলাদেশ গড়ার জন্য ধর্ম-বর্ণ, দলমত ও গোষ্ঠী নির্বিশেষে সকলকে সাথে নিয়ে কাজ করতে হবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রতিটি ধর্মই মানুষের কল্যাণের কথা বলে ও শান্তির বার্তা শোনায়। সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদীর কার্যক্রম কোন ধর্মই সমর্থন করেনা। সকলের সহযোগিতায় ধর্মীয় উগ্রবাদ, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদকে প্রতিহত করা হবে।

ধর্মীয় নেতাদের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আপনারা যদি সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও মাদকবিরোধী কথা বলেন তবে ইতিবাচক সুফল পাওয়া যাবে। তাহলে তরুণ প্রজন্ম জঙ্গিবাদ বা উগ্রবাদী কর্মকাণ্ডে জড়িত হবেনা।

বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের সংবিধানে ধর্ম নিরপেক্ষতার মূলনীতি যুক্ত করে মূলত অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ বিনির্মাণের ভিত্তি প্রস্তর করে গিয়েছেন উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আজকের বিশ্বে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি একটি কাঙ্ক্ষিত বিষয়। যা বর্তমান সরকার এদেশে যে কোন মূল্যে বজায় রাখতে বদ্ধ পরিকর। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির আদর্শ দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হচ্ছে। আজকের পৃথিবীতে যে দেশে সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠী যত বেশী নিরাপদও ভালো অবস্থায় আছে সে দেশকে ততটা সভ্য ও উন্নত দেশ হিসেবে মূল্যায়ন করা হয়ে থাকে।

ফরিদুল হক খান আরও বলেন, আমরা বাংলাদেশের সংখ্যালঘু ধর্মীয় সম্প্রদায়সমূহের কল্যান ও নিরাপত্তা বিধানের মাধ্যমে বাংলাদেশকে আমরা একটি সভ্য দেশ হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিপূর্ণ বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে আমরা সকলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ২০৪১ সালের উন্নত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে কাজ করে যাব।

আলোচনা সভায় ময়মনসিংহ বিভাগীয় কমিশনার মো: কামরুল হাসানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের মেয়র মো: ইকরামুল হক টিটু, ইসলামিক ফাউণ্ডেশনের মহাপরিচালক আনিস মাহমুদ, রেঞ্জ ডিআইজি ব্যারিস্টার মো: হারুন অর রশিদ, জেলা প্রশাসক মিজানুর রহমান, জেলা পুলিশ সুপার মোহা: আহমার উজ্জামান।