এক লাখ কোটি গাছ লাগালেই ফিরে আসবে ১০০ বছর আগের বাতাস!

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮:৪৯ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ৯, ২০১৯ | আপডেট: ৮:৪৯:পূর্বাহ্ণ, জুলাই ৯, ২০১৯

গাছ লাগাতে হবে অন্তত এক লাখ কোটি। খুব দ্রুত। তবেই আমার, আপনার শ্বাসের বাতাসের বিষ কমবে। আমাদের বায়ুমণ্ডল হয়ে উঠবে ১০০ বছর আগেকার মতো।

মাথায় রাখতে হবে, গাছ লাগালেই বাঁচবেন। না হলে যে হারে জলবায়ুর পরিবর্তন হচ্ছে, তাতে ফুলে-ফেঁপে ওঠা সমুদ্রের জলেই তলিয়ে যেতে হবে আমাদের। কারণ, উষ্ণায়নের জেরে বরফ গলছে অস্বাভাবিক দ্রুত হারে। আর বিশ্বজোড়া শিল্পায়নের দৌলতে বাতাস ভয়ঙ্কর ভাবে বিষিয়ে উঠছে কার্বন মনোক্সাইড, কার্বন ডাই-অক্সাইড, সালফার ডাই-অক্সাইড-সহ নানা ধরনের গ্রিন হাউস গ্যাসে।

যা তাপমাত্রা বাড়িয়ে দিচ্ছে পৃথিবীর। সুইৎজারল্যান্ডের জুরিখে সুইস ফেডারাল ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজির (ইটিএইচ জুরিখ) সাম্প্রতিক একটি গবেষণা এই কথা জানিয়েছে।

এক লাখ কোট গাছ লাগাতে জমির অভাব হবে না বলে জানানো হয়েছে গবেষণায়। গবেষণা হিসাব কষে দেখানো হয়েছে, যদি আমার, আপনার সদিচ্ছা আর আন্তরিকতা থাকে দ্রুত এক লাখ কোটি গাছ বসিয়ে ফেলার, তা হলে, অন্তত জায়গার অভাবে সেই সব গাছের বেড়ে উঠতে ও বেঁচে থাকতে কোনও অসুবিধা হবে না।’

পৃথিবীর স্থলভাগের যতটা নিয়েছে শহর আর গ্রাম, চাষাবাদের জন্য সেই জমিতে যতটা ভাগ বসানো হয়েছে, তাকে হিসাবের বাইরে রেখেও গবেষকরা দেখিয়েছেন, গাছ বসানোর জন্য ৩৫ লাখ বর্গ মাইল বা ৯০ লাখ বর্গ কিলোমিটার এলাকা পড়ে রয়েছে পৃথিবীতে। জায়গাটা মোটেই কম নয় কিন্তু।

গবেষণা এও জানিয়েছে, প্রচুর পরিমাণে গ্রিনহাউজ গ্যাস নির্গমনের ফলে বায়ুমণ্ডলে যে পরিমাণে কার্বন জমা হয়েছে, এক লাখ কোটি গাছ খুব তড়িঘড়ি বসিয়ে ফেলা সম্ভব হলে তার ২৫ শতাংশই বায়ুমণ্ডল থেকে সরে যাবে। বায়ুমণ্ডল হয়ে যাবে ১০০ বছর আগেকার মতো।