এথেন্সে জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা উপলক্ষে অনুষ্ঠান

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ৫:১২ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১১, ২০২০ | আপডেট: ৫:১২:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১১, ২০২০

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস এবং তার জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা উপলক্ষে গ্রীসের এথেন্সে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসে সর্বস্তরের প্রবাসী বাংলাদেশীদের অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে বিশেষ অনুষ্ঠান। এথেন্সে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিদের বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, আঞ্চলিক ও ব্যবসায়ী সংগঠনের প্রতিনিধি, দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অনুষ্ঠানটিতে উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে গ্রীসে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. জসীম উদ্দিন তার বক্তব্যে জাতির পিতার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন এবং ১০ জানুয়ারি তার স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের প্রেক্ষাপট বর্ণনা করেন। রাষ্ট্রদূত বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের মধ্য দিয়ে নয় মাসের রক্তক্ষয়ী স্বাধীনতা যুদ্ধ শেষে অর্জিত বিজয় পরিপূর্ণতা পায়।

তিনি আরও বলেন, জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী যথাযথভাবে পালনের জন্য বাংলাদেশ সরকার বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। সেই কর্মসূচির সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে গ্রীসে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। এই কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতি যথাযথ সম্মান প্রদর্শন এবং তার মহতী জীবন ও কর্মকে বিশ্ব দরবারে তুলে ধরতে দূতাবাসের প্রয়াসের সাথে সামিল হতে প্রবাসী বাংলাদেশিদের প্রতি আহবান জানান।

এই প্রসঙ্গে রাষ্ট্রদূত জাতির পিতার মহান জীবনের উপর আলোকপাত করেন এবং সকলকে তার আদর্শ অনুসরন করার আহবান জানান। তিনি আরো বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজ বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধাদের স্বপ্ন বাস্তবায়নে এগিয়ে যাচ্ছে। তিনি প্রবাসী বাংলাদেশিদের রূপকল্প ২০২১ ও ২০৪১-এর লক্ষ্য অর্জনের জন্য কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করার আহ্বান জানান।

এছাড়া, অনুষ্ঠানে জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী ক্ষণগণনার উপর একটি প্রমাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়। দূতাবাসের কাউন্সেলর সুজন দেবনাথের সঞ্চালনায় এই অনুষ্ঠানে বক্তারা জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠানকে সাফল্যমণ্ডিত করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মুজিববর্ষে দূতাবাস কর্তৃক আয়োজিত অনুষ্ঠান সম্পর্কে একটি ধারণা প্রদান করা হয়। অন্যান্য আয়োজনের মধ্যে এ বছর আগামী ৪ এপ্রিল ২০২০ তারিখে গ্রীসের যেখানে ম্যারাথন যুদ্ধ হয়েছিল সেই স্থানে বাংলাদেশ এবং গ্রীক নাগরিকদের অংশগ্রহণে “বঙ্গবন্ধু মিনি ম্যারাথন” অনুষ্ঠিত হবে। জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনার এই অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু মিনি ম্যারাথনসহ অন্যান্য অনুষ্ঠানে অংশগ্রগণের আহবান জানানো হয়। জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে দূতাবাসে একটি ক্ষণগণনা বোর্ড স্থাপন করা হয়।