এবারের ঈদেও গাইবেন ড. মাহফুজুর রহমান

টিবিটি টিবিটি

বিনোদন ডেস্ক

প্রকাশিত: ৩:৪৩ অপরাহ্ণ, মে ১৫, ২০২০ | আপডেট: ৩:৪৩:অপরাহ্ণ, মে ১৫, ২০২০
এটিএন বাংলার চেয়ারম্যান ড. মাহফুজুর রহমান। ফাইল ছবি

গত কয়েক বছর ধরে ঈদে ড. মাহফুজুর রহমানের গান শোনা যায়। তার গান মানেই শ্রোতাদের বাড়তি আগ্রহ। আর টিনএজেরা মুখিয়ে থাকেন তার গান নিয়ে ট্রল করার জন্য। করোনা মহামারিতেও থেমে নেই এই শিল্পী। এবারের ঈদেও গান শোনাবেন তিনি।

বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল এটিএন বাংলায় তার একক গানের অনুষ্ঠান দেখা যাবে। মৌলিক কিছু গান দিয়ে সাজানো হয়েছে এবারের অনুষ্ঠানটি।

এবারের অনুষ্ঠানের শিরোনাম দেওয়া হয়েছে ‘হিমেল হাওয়া ছুঁয়ে যায় আমায়’। অনুষ্ঠানটি এটিএন বাংলায় প্রচার হবে ঈদের পরদিন রাত ১০টা ৩০ মিনিটে।

এটিএন বাংলা ও এটিএন নিউজের চেয়ারম্যান ড. মাহফুজুর রহমান। ২০১৬ সালের ঈদুল আজহা থেকে প্রতি ঈদেই তিনি গানের অনুষ্ঠান নিয়ে দর্শকের সামনে হাজির হন। সারা দেশে তাঁর গানের অনুষ্ঠান বেশ আগ্রহের সঙ্গেই দেখেন দর্শক।

গেল ঈদেও ১০টি গান নিয়ে তাঁর একক সংগীতানুষ্ঠান প্রচার করা হয়। সেই ঈদের সবচেয়ে জনপ্রিয় অনুষ্ঠান হিসেবে স্থান দখল করে নেয় টিআরপিতে।

ধারাবাহিকতা বজায় রেখে এবারের রোজার ঈদেও গানের অনুষ্ঠান নিয়ে হাজির হচ্ছেন ড. মাহফুজুর রহমান। এটিএন বাংলার সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, মৌলিক কিছু গান দিয়ে সাজানো হয়েছে এবারের অনুষ্ঠান।

এরই মধ্যে গান রেকর্ড হয়ে গেছে। করোনার প্রভাবে ঘরবন্দি হয়ে কাটবে এবারের ঈদ। একঘেয়েমির এই সময়ে ড. মাহফুজুর রহমানের গানের অনুষ্ঠান ভিন্ন মাত্রার আনন্দ যোগ করবে বলে প্রত্যাশা চ্যানেলটির।

২০১৬ সালে মাহফুজুর রহমান ‘হৃদয় ছুঁয়ে যায়’ শিরোনামে প্রথম একক গানের অনুষ্ঠান করেন। ২০১৭-এর ঈদুল ফিতরে প্রচারিত হয় তাঁর গান নিয়ে অনুষ্ঠান ‘প্রিয়া রে’। একই বছর তাঁর একক সংগীতানুষ্ঠান ‘স্মৃতির আলপনা আঁকি’ ব্যাপক আলোচিত হয়। ২০১৮ সালে তাঁর একক সংগীতানুষ্ঠান ‘বলো না তুমি কার’ এটিএন বাংলায় প্রচারিত হয়। গত বছর ঈদ উপলক্ষে ভক্তদের নতুন গান নিয়ে হাজির হয়েছিলেন ড. মাহফুজুর রহমান। এটিএন বাংলায় প্রচারিত হয় তাঁর একক সংগীতানুষ্ঠান ‘মন থেকে রইল শুভকামনা’।

তাঁর গাওয়া গান নিয়ে যাঁরা সমালোচনা কিংবা আলোচনা করেন, এসব নিয়ে একদমই চিন্তা করেন না মাহফুজুর রহমান। এনটিভির এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছিলেন, ‘বিশেষ একটা শ্রেণি আছে, যারা সব সময় আমার পেছনে লেগে থাকে। আমি ভালো করলেও পেছনে কথা বলে, আবার খারাপ কিছু করলেও করে। আমি ব্যক্তিগতভাবে ফেসবুক পছন্দ করি না। ফেসবুকের ইতিবাচক অনেক ব্যাপার আছে। কিন্তু তরুণ প্রজন্ম এটার অপব্যবহার বেশি করছে।’

গান গাওয়ার পাশাপাশি মাহফুজুর রহমান ‘স্মৃতির আলপনা আঁকি’ শিরোনামে একটি উপন্যাসও প্রকাশ করেছেন। এ ছাড়া ‘ভালোবাসি তোমাকে’, ‘আরো সাবধান’, ‘বিদ্রোহ চরিদিকে’ এই চলচ্চিত্রগুলোর গল্প তাঁর লেখা।