এবার আপনিও হতে পারেন মাসুদ রানা!

প্রকাশিত: ৪:২২ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৭, ২০১৮ | আপডেট: ৪:২২:অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৭, ২০১৮

“বাংলাদেশ কাউন্টার ইন্টেলিজেন্সের এক দুর্দান্ত স্পাই। গোপন মিশন নিয়ে ঘুরে বেড়ায় দেশ-দেশান্তর। বিচিত্র তার জীবন। অদ্ভুত রহস্যময় তার গতিবিধি। কোমলে-কঠোরে মেশানো নিষ্ঠুর-সুন্দর তার অন্তর। একা; টানে সবাইকে, কিন্তু বাঁধনে জড়ায় না। কোথাও অন্যায় অবিচার দেখলে রুখে দাঁড়ায়। পদে পদে তার বিপদ শিহরণ ভয় আর মৃত্যুর হাতছানি।”

পাঠকেরা এতক্ষণে বুঝে গেছেন, কার কথা বলছি। মাসুদ রানা, আমাদের কৈশরের নায়ক! কোমলতা আর কঠোরতার অদ্ভুত মিশেলে গড়া সে যুবক, যে সবাইকে মায়ায় বাঁধে, কিন্ত বাঁধনে জড়ায় না। মাসুদ রানা নামের সেই কল্পিত চরিত্রটাই ছিল আমাদের কাছে স্বপ্নের নায়ক। সেই মাসুদ রানাকে বইয়ের পাতা থেকে তুলে এনে সেলুলয়েডের ফিতায় বন্দী করতে যাচ্ছে জাজ মাল্টিমিডিয়া- এই খবরটা পুরনো। ধ্বংস পাহাড়, ভারতনাট্যম এবং স্বর্ণমৃগ- এই তিনটা উপন্যাস নিয়ে বানানো হবে সিনেমা, কাজ শুরু হবে এবছরই। প্রশ্ন ছিল, রূপালী পর্দায় কে হবেন মাসুদ রানা?

আলোচনায় শাকিব খান থেকে আরিফিন শুভ, কিংবা এবিএম সুমন- এরকম অনেকের নামই আসছিল। এমনকি দেশের বাইরের কোন নায়ককে মাসুদ রানার চরিত্রে নেয়া হবে কিনা, এমন গুঞ্জনও ছিল। তবে জাজ মাল্টিমিডিয়ার কর্ণধার আবদুল আজিজ ফেসবুকে জানিয়েছেন, মাসুদ রানা হবেন বাংলাদেশী কোন তরুণই। প্রতিষ্ঠিত কোন নায়ক নন, মাসুদ রানা হিসেবে দেখা যাবে একদম আনকোরা নতুন কাউকে। আর মাসুদ রানা নির্বাচনের এই প্রক্রিয়াটি চালানো হবে সারাদেশের তরুণদের মধ্যে, একটা রিয়েলিটি শো এর মাধ্যমেই বের করে আনা হবে মাসুদ রানাকে। রিয়েলিটি শো-এর নামও থাকবে ‘কে হবে মাসুদ রানা’!

ফেসবুক স্ট্যাটাসে আবদুল আজিজ লিখেছেন-

“কিছু দিন আগে জানিয়ে ছিলাম যে জাজ মাসুদ রানার প্রথম ৩টি গল্প নিয়ে ৩টি সিনেমা বানাচ্ছে। কিন্তু কে হবে মাসুদ রানা? সেই ২৭ বছরের ৫’১১” লম্বা, সুঠাম পেটানো শরীর, রোদে পোড়া তামাটে রং এর মাসুদ রানা।

অনেকেই বিভিন্ন নায়কের কথা বলেছে। আবার অনেকেই বলেছে, নতুন নায়ক নিতে। কাজী আনোয়ার হোসেন স্যার বর্তমানের নায়কদের (বাংলাদেশের) কারো মধ্যেই মাসুদ রানা কে দেখতে পান না। তাই আমরা পরিকল্পনা করলাম, নতুন নায়ক নেয়ার। আমরা কথা বললাম ইউনিলিভার এর সাথে। তাদের জানালাম একটা রিয়েলিটি শো এর মাধ্যমে আমরা মাসুদ রানা কে খুঁজে বের করতে চাচ্ছি । এবং এই মাসুদ রানাকে অবশ্যই বাংলাদেশের ছেলে হতে হবে ।

ইউনিলিভার জানালো যে তারা ফেয়ার এন্ড লাভলি ম্যানস ‘কে হবে মাসুদ রানা’ নামে একটি রিয়েলিটি শো এর মাধ্যমে, মাসুদ রানা কে খুঁজে বের করবে । সাথে মিডিয়া পার্টনার হিসেবে থাকবে চ্যানেল আই। যে কোন বাংলাদেশী পুরুষ নাগরিক বা বাংলাদেশী বংশোদ্ভুত কে কোন পুরুষ মাসুদ রানা হবার জন্যে আবেদন করতে পারবেন।”

জাজ জানিয়েছে, ২০১৮ সালেই শুরু হবে মাসুদ রানা সিরিজের ‘ধ্বংস পাহাড়’ অবলম্বনে প্রথম সিনেমাটি নির্মাণের কাজ। এই সিনেমার বাজেট হবে পাঁচ কোটি টাকা! বাংলাদেশি সিনেমা হিসেবে বাজেটের অঙ্কটা যথেষ্ট স্বাস্থ্যবান। গল্পের প্লট ঠিক রেখে নতুন করে গল্পের বিন্যাস করছে জাজ। আর পুরো বিষয়টাই তদারকি করবেন মাসুদ রানার স্রষ্টা কাজী আনোয়ার হোসেন। মাসুদ রানাকে নিয়ে এর আগেও চলচ্চিত্র নির্মিত হয়েছে, ‘বিস্মরণ’ উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত সেই সিনেমায় মাসুদ রানার চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন সোহেল রানা।

মাসুদ রানা বাছাইয়ের এই প্রক্রিয়াটা যথেষ্ট আশাব্যঞ্জক। ১৪ পর্বের রিয়েলিটি শো- এর মাধ্যমে মাসুদ রানাকে খুঁজে বের করা হবে, তাকে এই চরিত্রের জন্যে প্রস্তুত করার সময়ও পাওয়া যাবে এতে, গ্রুমিংটাও ঠিকঠাক হবে। মাসুদ রানা হওয়ার জন্যে সেটাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের ইতিহাসেই এটা একটা অভূতপূর্ব ঘটনা, এর আগে একটা চরিত্রের জন্যে কখনও রিয়েলিটি শো-এর মাধ্যমে নায়ক খোঁজা হয়নি কখনও।

নায়কের ব্যাপারটা ঠিকঠাক সামলানোর পথে হাঁটছে জাজ, তবে সবচেয়ে বড় দুশ্চিন্তাটা পরিচালক নিয়ে। একটা সিনেমার পরিচালক হচ্ছেন ক্যাপ্টেন অফ দ্য শীপ। তিনিই ঠিক করবেন সিনেমাটা কোন পরে এগিয়ে যাবে, সেটার গন্তুব্য কি হবে। মাসুদ রানা’র পরিচালক হিসেবে চার ভারতীয় পরিচালক বাবা যাদব, জয়দীপ মুখার্জী, রাজা চন্দ এবং রাজ চক্রবর্তী- এদের মধ্যে যে কাউকে চায় জাজ- শোনা গেছে এমনটাই।

ভারতীয় যে চার পরিচালকের নাম আসছে, তাদের কয়জন মাসুদ রানার কয়টা গল্প পড়েছেন? আমরা যেভাবে মাসুদ রানা, জেনারেল রাহাত খান, সোহানা, সোহেল বা গিলটি মিয়া চরিত্রগুলোকে অনুভব করি, তারা কি সেভাবে করবেন? দুর্দান্ত থ্রিলার বানানোর মতো মেধাবী পরিচালক আমাদের দেশেই আছেন, তারাও হয়তো কৈশরে মাসুদ রানায় মজেছিলেন। কিন্ত তাদের ডিঙিয়ে কলকাতার পরিচালক ডেকে আনা কেন? আর কলকাতার পরিচালক নিয়েই যদি কাজ করতে হয়, তাহলে বাবা যাদব বা রাজ চক্রবর্তীকে কেন দায়িত্ব দিতে হবে, সৃজিত মুখার্জী বা অরিন্দম শীলের মতো থ্রিলারে হাত পাকিয়ে ফেলা মানুষগুলোকে কেন ডিরেক্টর’স চেয়ারটা অফার করা হচ্ছে না?

সে যাই হোক, কাজী আনোয়ার হোসেন কাউকে মাসুদ রানা বানানোর জন্য রাইট দেন না, কারণ কেউ নাকি ঠিকমতো রানাকে উপস্থাপন করতে পারবে না। তিনি যখন জাজ মাল্টিমিডিয়ার ওপর ভরসা রেখেছেন, আমরাও রাখতেই পারি। আর আশা করতে পারি, মাসুদ রানা’র নায়কের মতো পরিচালক বাছাইয়ের ব্যাপারেও বুদ্ধিমত্তার পরিচয় দেবে প্রযোজক সংস্থাটি। মাসুদ রানা আমাদের কাছে শুধু একটা চরিত্র নয়, মাসুদ রানা আমাদের কাছে অন্যরকম একটা আবেগের নামও। আমাদের সুপারম্যান-ব্যাটম্যান কিছুই ছিল না, কাজী আনোয়ার হোসেনের মাসুদ রানাই ছিল আমাদের সুপারহিরো। আমাদের দেশীয় চরিত্র মাসুদ রানাকে নিয়ে সিনেমা হচ্ছে, সেই সিনেমা নিয়ে আমাদের গর্ব করার কথা। জাজ মাল্টিমিডিয়া সেই গর্ব করার সুযোগটা আমাদের দেবে, সেই স্বপ্ন আমরা দেখতেই পারি।