এবার চার বাংলাদেশি জেলেকে ধরে নিয়ে বিএসএফের নির্যাতন

প্রকাশিত: ৮:১৬ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২২, ২০২০ | আপডেট: ৮:১৬:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২২, ২০২০
ছবি: সংগৃহীত

রাজশাহীর খরচাকা সীমান্তে পদ্মায় মাছ ধরার সময় চার জেলেকে ধরে নিয়ে গিয়ে নির্যাতন করেছে বিএসএফ।

বুধবার (২১ অক্টোবর) বিকেলে তাদের ধরে নিয়ে যায়। ওইদিন রাত সাড়ে নয়টার দিকে বিএসএফ তাদের ছেড়ে দেয়। রাতে তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয় বলে জানান গেছে।

বিএসএফের হাতে নির্যাতনের শিকার জেলেরা হলেন রাজশাহীর পবা উপজেলার গহমাবোনা গ্রামের জমি মোহাম্মদের ছেলে মো. আলম (৪৯), আলমের ছেলে আনোয়ার (২৩), সাইদুর রহমানের ছেলে সিফাত (১৯) ও কসবা গ্রামের জিল্লুর রহমানের ছেলে সোনারুল (২৮)। তাদের মধ্যে আনোয়ারকে বুধবার রাত ২টার দিকে হাসপাতালের ৩১ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়।

আনোয়ার জানান, বুধবার বিকালে গহমাবোনার কাছে পদ্মায় মাছ ধরার সময় বিএসএফের সদস্যরা স্পিডবোটে এসে ধরে নিয়ে যায়। তাদের সীমান্তের মধ্যে প্রবেশ করেছি বলে তারা আমাদের নির্যাতন করে। আমাদের লাঠি দিয়ে পেটানো হয়। এরপর রাত সাড়ে ৯ টার দিকে তারা আমাদের ছেড়ে দেয়।

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) রাজশাহীর-১ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল ফেরদৌস জিয়াউদ্দিন মাহমুদ জানান, সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে চার জেলেকে নিয়ে গিয়ে নির্যাতন করা হয়েছে। আমরা বিএসএফের সঙ্গে এ বিষয়ে কথা বলার জন্য পতাকা বৈঠকের আহ্বান করেছি। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার (২২ অক্টোবর) বেলা ২টার দিকে সীমান্তে পতাকা বৈঠকের কথা ছিল। কিন্তু বৈঠকটি স্থগিত হয়েছে। পরে বিএসএফের পক্ষ থেকে জানানো হয়, শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) পতাকা বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হবে। তারা তো এভাবে নির্যাতন করতে পারে না। সীমান্ত অতিক্রম করার প্রমাণ হিসেবে তারা নৌকা দুটি রেখে দিয়েছে।