এমপিওভুক্ত হলো মুহিবুর রহমান মানিক সোনালীনুর উচ্চ বিদ্যালয়

হাবিবুল্লাহ হেলালি হাবিবুল্লাহ হেলালি

দোয়ারাবাজার(সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৫:২৯ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৪, ২০১৯ | আপডেট: ৫:২৯:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৪, ২০১৯
ছবি: টিবিটি

মুহিবুর রহমান মানিক সোনালীনুর উচ্চ বিদ্যালয়টি এমপিওভুক্ত হওয়ায় দোয়ারাবাজার উপজেলার হাওরপাড়ের মানুষ আনন্দিত ও উচ্ছসিত। সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের ২৭৩০ টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করণের ঘোষণা দেন।

এসবের মধ্যে ওই বিদ্যালয়টি নি¤œমাধ্যমিক স্তরে অন্তর্ভুক্ত করায় শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীর দীর্ঘ দিনের প্রত্যাশা ও স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। স্কুল কমিটিসহ বিদ্যালয়ের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সকলেই সন্তোষ প্রকাশ করে বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী, শিক্ষামন্ত্রী শিক্ষাপ্রতিমন্ত্রী এবং স্থানীয় সাংসদ মুহিবুর রহমান মানিকের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

উল্লেখ্য, উপজেলার শিক্ষা বঞ্চিত ও দুর্গম হাওর এলাকায় একটি মাধ্যমিক স্তুরের বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার দাবি ছিল এখানকার মানুষের দীর্ঘদিনের। সুরমা ইউনিয়নের হাওর বেষ্টিত জনপদে অন্তত ১৫/২০ টি গ্রামের নিকটবর্তী কোনো উচ্চ বিদ্যালয় ছিলনা। স্থানীয় সমাজ সচেতন শিক্ষিত লোকদের আন্তরিক উদ্যোগ ও এলাকাবাসীর সার্বিক সহযোগিতায় ২০০৯ সালে উপজেলার কাংলার হাওর ঘেঁষে আলীপুর গ্রামে বিদ্যালয়ের একাডেমিক কার্যক্রম শুরু হয়। ২০১১ সালে বিদ্যালয়ের ক্লাশের অনুমতি মিলে।

২০১০ সালে বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠার জন্য এলাকাবাসীর দাবির প্রেক্ষিতে স্থানীয় সাংসদ মুহিবুর রহমান মানিক ব্যক্তিগত তহবিল থেকে পর্যায়ক্রমে ২০ লাখ টাকা অনুদান প্রদান করেন। পরবর্তীতে সংসদ সদস্যের এমন উদ্যোগের কৃতজ্ঞতা স্বরুপ এলাকাবাসী ‘মুহিবুর রহমান মানিক সোনালীনুর উচ্চ বিদ্যালয়’ নামকরণ করেন।

এলাকাবাসী জানান, নুরপুর সোনাপুর হতে বিদ্যালয় পর্যন্ত ও বিদ্যালয় হতে আলীপুর-হাসনবাহার গ্রামের সংযোগ সড়ক না থাকায় বর্ষাকালে শিক্ষার্থীরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে স্কুলে আসা যাওয়া করতে হয়। এছাড়া খাসিয়ামারা নদীর উপর ব্রিজ না থাকায় প্রতিনিয়ত ছাত্রছাত্রীরা ঝুঁকির মধ্যে নদী পারাপার হয়ে বিদ্যালয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে।

প্রধান শিক্ষক নুরুল ইসলাম বলেন, আমাদের প্রাণের দাবি পূরণ হয়েছে। এ জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সহ আমাদের এ আসনের সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক মহোদয়কে আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। তিনি বলেন, বিদ্যালয়ে বর্তমানে প্রায় ৪০০ ছাত্রছাত্রী আছে। প্রতিবছর এখান থেকে শিক্ষার্থীরা এসএসসি পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করে সন্তোষজনক ফলাফল অর্জন করে। এবারও এসএসসিতে পাশের হার ছিল শতকরা ৭৯ দশমিক ৯০।

স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মশিউর রহমান মাস্টার বলেন, বিদ্যালয়টি এমপিওভুক্ত করার দাবি আমাদের দীর্ঘদিনের। এমপিওভুক্ত করায় আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, শিক্ষামন্ত্রী ড. দীপুমনি ও সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক মহোদয়ের প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। পাশাপাশী ১০ম শ্রেণির এমপিওভুক্তিকরণ, বিজ্ঞান বিভাগ চালু এবং বিদ্যালয় হতে হাওরপাড়ের বিভিন্ন গ্রামের সংযোগ সড়ক নির্মাণ, আলীপুর বাজারস্থ খাসিয়ামারা নদীতে ব্রিজ নির্মাণ এখন সময়ের দাবি।