এমপি হওয়ার আগে বার্ষিক আয় ছিল ১০ লাখ, পরে ১০ কোটি!

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:০৪ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২০, ২০১৯ | আপডেট: ১২:০৪:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২০, ২০১৯
সংগৃহীত

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য নুরুন্নবী চৌধুরী শাওনের অর্থবিত্ত আলোচনায়। ভোলা-৩ আসনের সংসদ সদস্য হওয়ার পর তার অবস্থার আমূল পরিবর্তন। রাজধানী ঢাকায় কিনেছেন একাধিক ফ্ল্যাট, অন্তত ১০ খণ্ড জমি।

নিজের নির্বাচনী এলাকায় কিনেছেন পুকুর, বাগান, ভিটাসহ অন্তত ৭২৯ শতাংশ জমি। মালিক হয়েছেন তিনটি গাড়ি ও একাধিক আগ্নেয়াস্ত্রের। ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান, নিজ ও স্ত্রীর নামে বিভিন্ন ব্যাংকে ৪৪টি হিসাবে জমা আছে প্রায় ১৫ কোটি টাকা। সংসদ সদস্য হওয়ার আগে বার্ষিক ১০ লাখ টাকা আয় করা শাওনের এখন বার্ষিক আয় ১০ কোটি টাকার ওপরে।

২০০৯ সালে নবম জাতীয় সংসদের ভোলা-৩ আসনের উপনির্বাচনে জিতে প্রথম সংসদ সদস্য হন শাওন। ওই সময় নির্বাচন কমিশনে দাখিলকৃত হলফনামা অনুসারে শাওনের আয় ছিল ১০ লাখ ২৩ হাজার ৭৬০ টাকা।

২০১৭-১৮ অর্থবছরের আয়কর হিসাব বিবরণী (চলতি আয়কর বর্ষে দাখিল করা) অনুসারে শাওন আয় করেছেন ১০ কোটি ৩৬ লাখ ২২ হাজার ৮২৯ টাকা ৬৭ পয়সা। এ আয়ের বেশির ভাগই এসেছে তাঁর ব্যাবসায়িক প্রতিষ্ঠান নওয়াল কনস্ট্রাকশন থেকে।

সম্প্রতি বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে চিঠি দিয়ে দেশের সব ব্যাংকে শাওন ও তাঁর স্ত্রী ফারজানা চৌধুরী এবং তাঁদের ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলোর ব্যাংক হিসাবের তথ্য জানতে চাওয়া হয়।

একাধিক সূত্র জানায়, বিভিন্ন ব্যাংকে শাওনের ১২টি হিসাবের খোঁজ পেয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। তাঁর স্ত্রী ফারজানা চৌধুরীর নামে ১০টি, শাওনের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান নওয়াল কনস্ট্রাকশনের নামে ১৮টি ও ডিজিটাল টেকের নামে দুটি, স্ত্রীর মালিকানাধীন ফারজানাস ক্লোসেট লিমিটেডের নামে দুটি হিসাব রয়েছে।

শাওনের নামে থাকা ব্যাংক হিসাবগুলোতে প্রায় এক কোটি টাকা রয়েছে। নওয়াল কনস্ট্রাকশনের ব্যাংক হিসাবে সাড়ে ১১ কোটি ও ডিজিটাল টেকের নামে ৭০ লাখ টাকা রয়েছে। ফারজানার ব্যাংক হিসাবে রয়েছে প্রায় এক কোটি টাকা।

শাওনের আয়কর বিবরণীর তথ্যানুসারে ২০১৬-১৭ অর্থবছরে তাঁর নিট সম্পদের পরিমাণ ছিল ২৬ কোটি ৬৬ লাখ ৭১ হাজার ৯৪১ টাকা। এর আগের বছর তাঁর নিট সম্পদের পরিমাণ ছিল ২৩ কোটি ৫৩ লাখ ৩৭ হাজার ৮১৬ টাকা।

অর্থাত্ ২০১৬-১৭ অর্থবছরে শাওনের তিন কোটি ১৩ লাখ ৩৪ হাজার ১২৫ টাকার সম্পদ বৃদ্ধি পায়। কিন্তু পরের বছর অর্থাত্ ২০১৭-১৮ অর্থবছরে শাওনের আয় তিন গুণের বেশি বেড়েছে।

এ বছর তাঁর নিট সম্পদের পরিমাণ ৩৭ কোটি দুই লাখ ৯৪ হাজার ৭৭০ টাকা ৬৭ পয়সা। এই আয়কর বিবরণী অনুসারে একটি ৩২ বোরের পিস্তল ও একটি ২২ বোরের শটগান কিনেছেন শাওন।

সিন্ডিকেট গড়ে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে ঠিকাদারি কাজ ভাগবাটোয়ারার মধ্য দিয়ে বেশির ভাগ অর্থ আয় করেছেন বলে বিভিন্ন সূত্র জানিয়েছে। সূত্রগুলো বলছে, আয়কর বিবরণীতে প্রদর্শিত এসব সম্পদের বাইরেও শাওনের আরো কয়েক শ কোটি টাকার সম্পদ আছে।

যেগুলো তাঁর ঘনিষ্ঠদের নামে রয়েছে। তাঁর প্রদর্শিত সম্পদের তথ্যবিবরণী ও ব্যাংক হিসাবের তথ্য হাতে আছে। শাওন যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরীর ঘনিষ্ঠ নেতা হিসেবে পরিচিত।

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শুদ্ধি অভিযান শুরুর পরে দুজনই কোণঠাসা হয়ে পড়েছেন। যুবলীগ নেতাদের সঙ্গে আজ রবিবার গণভবনের বৈঠকেও তাঁদের দুজনকে উপস্থিত থাকতে অনুমতি দেননি শেখ হাসিনা।

সুত্র: কালের কন্ঠ