কথা ছিল বিষপানে মরবে একসঙ্গে, আগে পান করে প্রেমিকার মৃত্যু

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:০৪ অপরাহ্ণ, জুন ১০, ২০২১ | আপডেট: ৯:০৪:অপরাহ্ণ, জুন ১০, ২০২১
প্রতীকী ছবি

কিশোর-কিশোরীর প্রেমের সর্ম্পক মেনে না নেওয়ায় সহপাঠীদের প্ররোচনায় কিশোর প্রেমিক যুগল বিষপান করে আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নেয়। তবে বিষপানের সময়ে প্রেমিকা বোতলে থাকা সব বিষ একাই পান করে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে।

বেঁচে যায় কিশোর প্রেমিক। বরিশাল জেলার গৌরনদী উপজেলার খাঞ্জাপুর ইউনিয়নের পশ্চিম সমরসিংহ গ্রামে মঙ্গলবার (৮ জুন) এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় প্রেমিকসহ তিনজন সহপাঠীকে পুলিশ আটক করেছে বলে নিশ্চিত করেছেন গৌরনদী থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) তৌহিদুজ্জামান।

তিনি বলেন, আটকদের বৃহস্পতিবার দুপুরে আদালতে সোপর্দ করা হয়। আদালত তাদের যশোর কিশোর সংশোধনাগারে পাঠিয়েছেন।

ওসি আরো জানান, বুধবার দিনগত রাতে এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করেন নিহত স্কুলছাত্রীর মা মুরশিদা বেগম (৩৫)।

জানা যায়, ওই গ্রামের আলী আকবর ফকিরের মেয়ে মেদাকুল হাইস্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্রী রিয়া আক্তারের (১৫) সঙ্গে একই বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী ও পশ্চিম ডুমুরিয়া গ্রামের হারুন বেপারীর পুত্র সাগর বেপারীর (১৭) প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হওয়ার পর রিয়ার পরিবারের সদস্যরা সাগরের বাবার কাছে বিষয়টি জানিয়ে বিচার দাবি করেন। পরিবারের পক্ষ থেকে কোনো অবস্থাতেই প্রেমের সর্ম্পক মেনে নেওয়া হবে না জেনে রিয়া ও সাগর তাদের অপর সহপাঠী মেদাকুল গ্রামের সাজ্জাদ সরদার (১৭) ও পূর্ব সমরসিংহ গ্রামের সমাপ্তি দত্তের (১৬) সঙ্গে আলোচনা করে। সবাই মিলে বুদ্ধি দেয়, প্রেমের সর্ম্পক মেনে না নিলে বিষ খেয়ে মরে যেতে।

মঙ্গলবার (৮ জুন) সকালে প্রাইভেট পড়তে গিয়ে প্রেমিক যুগল স্কুলের পাশে বসে ওই সহপাঠীদের উপস্থিতিতে সাগরের আনা কীটনাশক (বিষ) পান করে আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নেয়। কথা অনুযায়ী, স্কুলছাত্রী রিয়া প্রথমেই বোতলে থাকা সব বিষ একা পান করে অসুস্থ হয়ে পড়ে। প্রেমিক সাগরসহ তাদের অপর দুই সহপাঠী মুমূর্ষ অবস্থায় রিয়াকে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে (রিয়া) মৃত ঘোষণা করেন।

এসময় সাগর ও তার অপর দুই সহযোগী রিয়ার মরদেহ রেখে পালানোর সময় তিনজনকেই আটক করে পুলিশের কাছে সোর্পদ করা হয়।