করোনাকালে লিফট ও সিঁড়ি ব্যবহারে এই নিয়মগুলাে মানতেই হবে…

প্রকাশিত: ৮:২২ অপরাহ্ণ, মে ৭, ২০২০ | আপডেট: ৮:২২:অপরাহ্ণ, মে ৭, ২০২০

করোনাভাইরাস সংক্রমণের এ সময়ে যতটা সম্ভব সচেতন থেকে সংক্রমণ এড়িয়ে চলতে হবে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে গেলেও খোলা আছে সরকারি অফিস আদালত, বিপণিবিতানসহ অনেক প্রতিষ্ঠান। ঢাকাসহ বিভিন্ন শহরে বহুতল ভবনে অফিস করেন অনেকেই। অফিসে পৌঁছাতে তাই লিফট ব্যবহার করার প্রয়োজন হয় অনেকের।

হাঁচি-কাশির দেওয়ার সামাজিক নিয়মকানুনের মতো লিফট ব্যবহারেরও আছে কিছু নিয়মকানুন। আমাদের সাধারণ প্রবণতা হলো, লোকাল বাসের মতো লিফটে উঠতেও আমরা হুড়োহুড়ি করে থাকি কিংবা প্রচুর মানুষ ঠেলাঠেলি করে লিফটে উঠে পড়ি।

বিশেষজ্ঞদের মতে, লিফটের বোতাম থেকেও করোনা ভাইরাস সংক্রমণের আশঙ্কা থাকে। তাই সাবধান হোন আপনারাও।

যদি কোনও সংক্রামিত ব্যক্তি তার আঙুল দিয়ে লিফটের বোতাম ‘প্রেস’ করে তাহলে তার শরীরে থাকা ভাইরাস বোতামের গায়ে থেকে যায়। তারপরে যদি কোনও সুস্থ ব্যক্তি সেই বোতাম ’প্রেস’ করেন তাহলে ভাইরাসটি তার শরীরে ঢুকে যায়। এভাবেই লিফট থেকে সংক্রমণ ছড়াতে পারে।

দেখে নিন লিফট থেকে করোনা সংক্রমণ এড়াতে কী কী সতর্কতা অবলম্বন করবেন। লিফট ব্যবহারের ক্ষেত্রে যে সাবধানতা মেনে চলবেন…

১) লিফটে ঢোকার আগে অবশ্যই মুখে মাস্ক পরে থাকবেন।

২) লিফটের গায়ে হেলান দিয়ে দাঁড়াবেন না।

৩) লিফটের বোতাম টেপার ক্ষেত্রে টুথপিক, ইয়ারবাড বা টিস্যু পেপার ব্যবহার করুন।

৪) যে জিনিসটি বোতাম টেপার ক্ষেত্রে ব্যবহার করেছেন সেটা যাতে আপনার শরীরের কোনও অংশে না লাগে, সেদিকে খেয়াল রাখুন।

৫) এরপর সেটি ঢাকনাযুক্ত ডাস্টবিনে ফেলে দিন।

৬) তারপর হাত সাবান দিয়ে ভালো করে ধুয়ে নিন অথবা স্যানিটাইজার লাগান।

লিফট ব্যবহারের পাশাপাশি আপনি যদি সিঁড়ি ব্যবহার করেন সেক্ষেত্রেও কিছু নিয়ম বিধি মেনে চলা আবশ্যক।

সিঁড়ি ব্যবহারের ক্ষেত্রে খেয়াল রাখবেন যাতে সিঁড়ির রেলিংগুলি যেন আপনার দ্বারা কোনওভাবে স্পর্শ না হয়। কারণ, অজান্তে কোনও কভিড-১৯ দ্বারা আক্রান্ত ব্যক্তি রেলিং স্পর্শ করে থাকলে তা থেকে আপনিও সংক্রামিত হতে পারেন।

ভুলবশত আপনি যদি রেলিং স্পর্শ করেন তবে অন্য কোথাও স্পর্শ না করে তৎক্ষণাৎ সাবান দিয়ে ভালো করে হাত ধুয়ে নিন।