করোনাভাইরাস প্রতিরোধ করতে পারে গাঁজা: গবেষণা

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:২৬ পূর্বাহ্ণ, মে ২৪, ২০২০ | আপডেট: ১১:২৬:পূর্বাহ্ণ, মে ২৪, ২০২০

করোনা আতঙ্কে ভুগছে সারা বিশ্ব। এই মারণ ভাইরাসে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন। মারা যাচ্ছেন শত শত মানুষ। করোনার চিকিৎসায় এখনো কোনো ওষুধ বা ভ্যাকসিন উদ্ভাবন করা সম্ভব হয়নি। চলছে গবেষণা। পাওয়া যাচ্ছে নতুন নতুন তথ্য। আর এবার বলা হচ্ছে, করোনার চিকিৎসায় সহায়তা করতে পারে গাঁজার নির্যাস।

কানাডার লেথব্রিজ ইউনিভার্সিটি বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, গাঁজার মধ্যে শক্তিশালী স্ট্রেইন খুঁজে পেয়েছেন, যা করোনাভাইরাস প্রতিরোধ এবং কোভিড-১৯ রোগের চিকিৎসায় সহায়তা করতে পারে।

গবেষকদের মতে, এই স্ট্রেইনগুলো এসিইটু পাথগুলোকে প্রভাবিত করতে পারে, যা ভাইরাসটি মানুষের শরীরে প্রবেশদ্বার হিসেবে ব্যবহার করে থাকে।

সিটিভি নিউজকে এ গবেষণা প্রকল্পের অন্যতম গবেষক ওলগা কোভালচুক জানান, ‘এ ফলাফলে আমরা প্রথমে সম্পূর্ণ হতবাক হয়ে গিয়েছিলাম এবং এরপর আমরা সত্যিই খুশি হয়েছিলাম।’

গবেষকরা জানিয়েছেন, গাঁজা ভাইরাসের দেহে প্রবেশের পয়েন্টগুলো ৭০ শতাংশ পর্যন্ত কমাতে পারে। ক্যালগারি হেরাল্ডকে কোভালচুক বলেন, ‘সুতরাং, আপনি ভাইরাসটির বিরুদ্ধে লড়াই করার আরো সুযোগ পান। আমাদের এই গবেষণার ফলাফল বিশাল প্রভাব ফেলতে পারে- এমন খুব বেশি ওষুধ নেই যেগুলো সংক্রমণটি ৭০ থেকে ৮০ শতাংশ হ্রাস করার সম্ভাবনা রাখে।’

গবেষকরা স্বীকার করেছেন যে এক্ষেত্রে আরো গবেষণার প্রয়োজন রয়েছে। তবে তারা এটাও বলেছেন, করোনা প্রতিরোধক হিসেবে গাঁজা মাউথওয়াশ এবং গার্গল প্রোডাক্ট হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে। কোভিড-১৯ চিকিৎসায় গাঁজার প্রভাব বিশ্লেষণে পরবর্তী গবেষণাগুলোর জন্য এই গবেষণার ফলাফল গুরুত্বপূর্ণ বলে উল্লেখ করেন।

গবেষকদের মতে, বর্তমানের ভয়াবহ এবং দ্রুত বিকশিত মহামারির পরিস্থিতি বিবেচনা করে প্রতিটি সম্ভাব্য চিকিৎসার সুযোগ বিবেচনা করতে হবে।’

তবে অন্যান্য বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করে জানিয়েছেন, গাঁজা সেবন করোনাভাইরাস জনিত ঝুঁকি আরো বাড়িয়ে দিতে পারে।

ইউসিএসএফ সেন্টার ফর টোবাক্যে কন্ট্রোল রিসার্চ অ্যান্ড এডুকেশনের ডা. স্ট্যান্টন গ্লান্টজ এফএফ উইকলিকে বলেন, ‘ধূমপান ফ্লু রোগে আক্রান্ত করে না, ভ্যাপিংও ফ্লু রোগ সৃষ্টি করে না। কিন্তু যারা ধূমপান করেন বা যারা ধূমপায়ীদের পাশে থাকেন তাদের অসুস্থ হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে।’

ডা. স্ট্যান্টন বলেন, ‘ধূমপায়ীদের ওপর করোনাভাইরাসের প্রভাব নিয়ে সরাসরি প্রচুর গবেষণা নেই। তবে প্রচুর প্রমাণ রয়েছে যে, ধূমপান এবং ভ্যাপিং আপনার ফুসফুসে রোগব্যাধির প্রতিরোধ ক্ষমতা কমিয়ে দেয়।

তিনি বলেন, ‘আপনি যদি গাঁজা সেবনের দিকে লক্ষ্য করেন এবং এটিকে ধূমপানের সঙ্গে তুলনা করেন তাহলে তা আলাদা কিছু নয়। আপনি নিকোটিনের বদলে টিএইচসি গ্রহণ করছেন। কিন্তু ফুসফুসের প্রতিরোধ ক্ষমতা প্রভাবিত করার কারণ শুধু নিকোটিনের জন্য হয়ে থাকে বলে মনে হয় না।’