করোনায় তিন বন্ধুর ‘একসঙ্গে’ মরার সিদ্ধান্ত!

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:২৯ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৯, ২০২০ | আপডেট: ৯:২৯:অপরাহ্ণ, মার্চ ১৯, ২০২০

নভেল করোনাভাইরাস। চীনের উহানে প্রথমে শনাক্ত হওয়া এ ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বের বেশিরভাগ দেশে। এতে প্রতিনিয়ত মৃতের সংখ্যা বাড়ছে, বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যাও। সর্বশেষ করোনা ভাইরাস চলে এসেছে বাংলাদেশেও। ইতিমধ্যে বাংলাদেশে করোনায় একজনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)।

এদিকে ব্রিটেনের ৭০ বছরের বেশি বয়সী তিন আজীবনের বন্ধু করোনাভাইরাসের মহামারিতে নিঃসঙ্গ না থেকে বরং একসঙ্গেই মরার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তারা একা একা কোয়ারেন্টিনে না গিয়ে বরং একসঙ্গে থেকে ‘ক্রাউন’ নামের টিভি সিরিজ দেখে সময় কাটানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এতে যদি তারা মারাও যান তাতেও তাদের আপত্তি নেই।

ব্রিটেনে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে নাগরিকদেরকে একাকী বাড়িতে অবস্থান করতে বলা হচ্ছে। কিন্তু উত্তর ইংল্যান্ডের এই তিন নারী সেই নির্দেশনা অমান্য করেই একসঙ্গে থেকে মদপান আর টিভি সিরিজ দেখে সময় কাটানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। খবর: ডেইল মেইল।

গত রবিবার ব্রিটিশ সরকার ৭০ বছরের বেশি বয়সী সব মানুষকে অনির্দিষ্টকালের জন্য বাড়িতে অবস্থান করার আদেশ দিয়েছে।

ডোরিন, ডোট্টি এবং ক্যারোল নামের ওই তিন নারীর বয়সও এখন ৭০। তারা গত ৪০ বছর ধরেই পরস্পরের বন্ধু।

বিবিসি ব্রেকফাস্টকে ডোরিন বলেছেন, ‘আগামী এক সপ্তাহ আমাদের নিজেদের যার যার বাড়িতেই একাকী অবস্থান করবো। এরপর আমরা যদি সুস্থ থাকি তাহলে আমরা যো কোনো একজনের বাড়িতে একসঙ্গে অবস্থান করবো।’

ডোরিন জানান, ‘ডোটির বাড়ির পেছনে লম্বা একটি বাগান আছে যা ব্যায়াম করার জন্য বেশ ভালো হবে।’

তিনি জানান, তার নেটফ্লিক্সে একটি অ্যাকাউন্ট আছে। সেখানে তারা ‘ক্রাউন’ টিভি সিরিজটি দেখবেন।

এসময় ডোরিন কৌতুক করে বলেন, তাদের জন্য মদের সরবরাহ থাকবে ভরপুর।

দীর্ঘদিন পরস্পরের বন্ধু থাকায় তারা এই ভাইরাসের মহামারির সময়ও একসঙ্গে থাকাটাকেই শ্রেয় মনে করছেন।

বিয়ে বিচ্ছেদ সহ জীবনের প্রতিটি বিপদে আমরা পরস্পরের পাশে ছিলাম। ছুটির দিনগুলো একসঙ্গে কাটিয়েছি। পরস্পরের যত্ন-আত্মি করেছি।