করোনায় মারা গেলে ৫০ লাখ টাকা পাবেন ব্যাংক কর্মকর্তার পরিবার

প্রকাশিত: ৯:০১ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৯, ২০২১ | আপডেট: ৯:০১:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৯, ২০২১
ছবি: সংগৃহীত

করোনা মহামারি সংক্রমণ প্রতিরোধে কঠোর লকডাউনের মধ্যে সীমিত পরিসরে চলছে ব্যাংকিং কার্যক্রম। এতে ব্যাংকে কর্মরতদের করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বাড়ছে। কর্মকর্তা-কর্মচারীদের এমন ঝুঁকি বিবেচনায় নিয়ে দায়িত্ব পালনে উৎসাহ জোগাতে বিশেষ ক্ষতিপূরণ প্রদানের নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

করোনা ভাইরাসের কারণে ব্যাংক কর্মকর্তা-কর্মচারীর অনাকাঙ্ক্ষিত মৃত্যু হলে ক্ষতিপূরণ বাবদ সর্বোচ্চ ৫০ লাখ টাকা পাবেন তার পরিবারের সদস্যরা।

সোমবার (১৯ এপ্রিল) এবিষয়ে একটি সার্কুলার জারি করে সব তফসিলি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে পাঠিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

এতে বলা হয়েছে, প্রথম শ্রেণির কর্মকর্তা বা সিনিয়র অফিসার বা প্রবেশনারি অফিসার বা ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনি অফিসার বা সমমান হতে তদূর্ধ্ব পদমর্যাদার কর্মকর্তারা অনাকাঙ্ক্ষিত ভাবে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করলে তার স্ত্রী বা স্বামী বা সন্তান এবং অবিবাহিতদের ক্ষেত্রে তার বাবা-মা ৫০ লাখ টাকা পাবেন।

দেশের সব বাণিজ্যিক ব্যাংকের প্রধান নির্বাহী ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের কাছে পাঠানো নির্দেশনার বাংলাদেশ ব্যাংক বলছে, ট্রেইনি অ্যাসিস্টান্ট অফিসার বা সমমান হতে এক ধাপ এর পূর্ব পর্যন্ত পদমর্যাদার কর্মকর্তারা করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন পাবেন ৩৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা। আর স্টাফ ও সাব স্টাফ (যে কোন প্রক্রিয়ায় নিয়োগকৃত বা নিয়োজিত) ব্যক্তিরা করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেলে তার আত্মীয়-স্বজন পাবেন ২৫ লাখ টাকা।

বাংলাদেশ ব্যাংক বলছে, করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া কর্মকর্তা বা কর্মচারীর ক্ষেত্রে ব্যাংকের তার অন্য কোনও দায়-দেনার সঙ্গে উক্ত ক্ষতিপূরণের অর্থ সমন্বয় করা যাবে না। এ ক্ষতি পূরণ বর্তমানে প্রচলিত অন্য যেকোনও প্রজ্ঞাপন, আদেশ, নীতিমালায় বর্ণিত কর্মকালীন মৃত্যুবরণের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য আর্থিক সহায়তা ও অনুদানের অতিরিক্ত হিসেবে প্রদেয় হবে।

বাংলাদেশ ব্যাংক আরও বলেছে, এই নির্দেশনা গত ২৯ মার্চ হতে কার্যকর হবে।