করোনা: জিনগত কারণেই ‘এ’ গ্রুপের রক্তে ঝুঁকি ৫০% বেশি

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ১০:২৬ পূর্বাহ্ণ, জুন ৫, ২০২০ | আপডেট: ১০:২৬:পূর্বাহ্ণ, জুন ৫, ২০২০

নভেল করোনাভাইরাসে বিশ্বজুড়ে আক্রান্তের সংখ্যা ৪০ লাখ ছাড়িয়েছে। মৃত্যুর সংখ্যাও ছাড়িয়েছে তিন লাখ। নতুন এ ভাইরাসটির প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে চলছে নানা রকম গবেষণা। চীনের দ্য সাউদার্ন ইউনিভার্সিটি অফ সায়েন্স এন্ড টেকনোলোজির এমনই এক গবেষণায় ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকির সঙ্গে রক্তের গ্রুপের সংযোগ খুঁজে দেখা হয়েছে। খবর: টাইমস অব ইন্ডিয়া।

ঐ গবেষণায় দেখা গেছে, করোনাভাইরাসে গুরুতর আক্রান্ত এবং রক্তের গ্রুপ ‘এ’-এর মধ্যে নিবিড় সম্পর্ক রয়েছে। এমনকি অন্তত ছয় শতাংশ মানুষের জিনগতভাবেই রক্তের গ্রুপ দুর্বল প্রকৃতির।

এর আগে সর্বপ্রথম চীনের বিজ্ঞানীরা জানান, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে যারা সবচেয়ে বেশি গুরুতর অবস্থায় পড়ছেন, তাদের বেশিরভাগেরই রক্তের গ্রুপ ‘এ’।

বর্তমানে জার্মানির কিয়েল ইউনিভার্সিটির একদল গবেষক বলেছেন, তারা দেখেছেন- জিনগত কিছু বৈশিষ্ট্যের মিল থাকা এবং রক্তের গ্রুপ এ যাদের, তারা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে গুরুতর অবস্থায় পড়ছেন।

অন্যদের তুলনায় এ গ্রুপের রক্তের রোগীদের ক্ষেত্রে অক্সিজেন কিংবা লাইফ সাপোর্ট প্রয়োজন হওয়ার হার ৫০ শতাংশ বেশি। এমনকি করোনায় মৃত্যুর দিক দিয়েও এ গ্রুপের রক্ত এবং জিনগতভাবে দুর্বল সেই ছয় শতাংশ ব্যক্তির সংখ্যা বেশি।

যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন হাসপাতালের দেওয়া তথ্যানুসারে, সে দেশে করোনায় মৃতদের মধ্যে ৪০ শতাংশই তরুণ। ২০, ৩০, ৪০ ও ৫০ বছরের মধ্যে তাদের বয়স।

সেন্টার ফর ডিজিস কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন (সিডিসি) জানিয়েছে, ৩০ মের মধ্যে হাসপাতালে যাদের ভর্তি করতে হয়েছে, তাদের মধ্যে ৩০ শতাংশের বয়স ১৮ থেকে ৪৯ বছরের মধ্যে।

এই বয়সে করোনা আক্রান্ত হয়ে গুরুতর হয়ে যাওয়ার ব্যাপারে গবেষণা করছেন বিজ্ঞানিরা। বিজ্ঞানিদের সন্দেহ, এর কারণ হতে পারে জিনগত ব্যাপার।

এজন্য জার্মানির কিয়েল ইউনিভার্সিটির একদল গবেষক ইতালির করোনায় গুরুতর রোগীদের নমুনা সংগ্রহ করেছেন। অন্তত ১৬১০ জন রোগীর নুমানা নিয়ে তারা কাজ করছেন।