কাঠালিয়ার সাদিক আর বলবে না ‘আব্বু তুমি কবে আসবে’

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৪:৩৩ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৪, ২০২১ | আপডেট: ৪:৩৩:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৪, ২০২১

মাছুম বিল্লাহ জুয়েল, কাঠালিয়া প্রতিনিধিঃ ঝালকাঠির কাঠালিয়া উপজেলার আওরাবুনিয়া ইউনিয়নের ছিটকী গ্রামের সাদিক আর বলবে না “আব্বু তুমি কবে আসবে”। অভাব অনাটনের কারনে জীবিকার তাগিদে আড়াই বছরের সাদিককে নানীর কাছে রেখে মা পাখি বেগম ও বাবা আনোয়ার হোসেন ঢাকার একটি গার্মেন্টেসে চাকুরী করেন।

নানীর মাধ্যমে মোবাইলে কথা হতো সাদিকের বাবা ও মায়ের সাথে। শিশুটি প্রায়ই আকুতি করে জানতে চাইতো আব্বু-আম্মু তোমরা কবে আসবে বাড়ীতে। আমার একা থাকতে কষ্ট হয়, তোমাদের কাছে আমাকে নিয়ে যাও। আর কখনও মোবাইলের অপর প্রান্ত থেকে ভাঙ্গা ভাঙ্গা শব্দের এ কথা গুলো শুনতে পাবেন না পাখি ও আনোয়ার।

গতকাল ১৩ এপ্রিল মঙ্গলবার দুপুরে রাজাপুর উপজেলার পুটিয়াখালী গ্রামে নানা হারুন মিয়ার বাড়ীর উঠানে খেলতে ছিলো সাদিক। খেলার এক পর্যায়ে সাদিককে না দেখতে পেয়ে খোঁজা-খুজি শুরু করেন স্বজনরা। পুকুরে পড়তে পারে এমন সন্দেহের ভিত্তিতে পুকুরে খুজতে গিয়ে তার নিথরদেহটি পাওয়া যায়। তাৎক্ষনিক রাজাপুর হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক মৃত্যু ঘোষনা করেন। আনোয়ার হোসেন ও পাখি বেগম একমাত্র সন্তান সাদিকের মৃত্যুর খবর শুনে পিতা-মাতা উভয়ই শোকে পাগল প্রায়।
পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, আজ ১৪ এপ্রিল বুধবার সাদিককে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। শিশুটির মৃত্যুতে রাজাপুরের পুটিয়াখালী গ্রামের নানা হারুনের বাড়ী ও কাঠালিয়ার ছিটকী গ্রামে বাবা আনোয়ার হোসেনের বাড়ী শোকের মাতম চলছে।

রাজাপুর থানার ওসি মোঃ শহিদুল ইসলাম জানান, আইনী প্রক্রিয়া শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।
উল্লেখ্য ২৪ ঘন্টার ব্যবধানে কাঠালিয়ায় উপজেলার আওরাবুনিয়া গ্রামের শম্ভু গাইন নামে একটি শিশু গতকাল সোমবার পুকুরে ডুবে মারা যায়।