কারা কর্তৃপক্ষের গাফিলতি পায়নি তদন্ত কমিটি

লেখক মুশতাকের মৃত্যু

প্রকাশিত: ৯:১৮ অপরাহ্ণ, মার্চ ৩, ২০২১ | আপডেট: ৯:১৮:অপরাহ্ণ, মার্চ ৩, ২০২১

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেপ্তার লেখক মুশতাক আহমেদের কারা হেফাজতে মৃত্যুর ঘটনার তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটি। তদন্তে কারা কর্তৃপক্ষের কোন গাফিলতি পায়নি তদন্ত কমিটি।

বুধবার তিন সদস্যের এই কমিটি রিপোর্ট জমা দিয়েছে। একই সঙ্গে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের গঠিত তদন্ত কমিটিও রিপোর্ট জমা দিয়েছে। এক প্রতিবেদনে এ খবর দিয়েছে ডয়চে ভেলে।

কমিটির প্রধান স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব তরুণ কান্তি শিকদার রিপোর্টের বিষয়ে কিছু বলতে রাজি হননি। বৃহস্পতিবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ বিষয়ে বিস্তারিত বলবেন। এছাড়া গাজীপুরের জেলা প্রশাসক দুই সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি করেছেন। সেই কমিটির রিপোর্ট জমা দেওয়ার সময় বাড়ানো হয়েছে।

কারা মহাপরিদর্শক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোমিনুর রহমান মামুন বলেন, ‘‘একজন উপ-কারা মহাপরিদর্শককে প্রধান করে আমরা যে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করেছিলাম সেই কমিটি বুধবারই রিপোর্ট জমা দিয়েছে। রিপোর্টটি আজই আমরা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়ে দিয়েছি।’’

রিপোর্টে কী আছে? জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘‘যেহেতু আরও একাধিক তদন্ত কমিটি কাজ করছে, তাই এখনই রিপোর্টের বিষয়ে কিছু বলা যাবে না। তবে যে কোন তদন্ত কমিটির রিপোর্টে যদি কারা কর্মকর্তাদের গাফিলতি পাওয়া যায় তাহলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’’ তদন্তে কোন কর্মকর্তার গাফিলতি পেয়েছেন কিনা এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘‘আমরা কোন গাফিলতি পাইনি। আসলে ওই মৃত্যুকে স্বাভাবিক বলছি, এই কারণে যে কোন না কোন রোগের কারণে তিনি মারা গেছেন। কী রোগে তার মৃত্যু হয়েছে, সেটা ময়না তদন্ত রিপোর্ট পেলেই জানা যাবে। আমাদের এখানে তার মৃত্যুটা স্বাভাবিকভাবেই হয়েছে।’’

জমা পড়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটির রিপোর্ট

লেখক মুশতাকের মৃত্যুর ঘটনায় গত শনিবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি করা হয়। কমিটিকে চার কর্মদিবসে রিপোর্ট দিতে বলা হয়। মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব তরুণ কান্তি শিকদারকে প্রধান করে গঠিত কমিটির অন্য সদস্যরা ছিলেন, গাজীপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আবুল কালাম, কারা উপ-মহাপরিদর্শক জাহাঙ্গীর কবির, গাজীপুর জেলা কারাগারের সহকারী সার্জন ডা. কামরুন নাহার। এছাড়া সুরক্ষা সেবা বিভাগের উপ-সচিব আরিফ আহমদ কমিটিতে সদস্য সচিবের দায়িত্ব পালন করেন। মুশতাক আহমেদের মৃত্যুতে কারা কর্তৃপক্ষের কোনো প্রকার গাফিলতি ছিল কি-না, যদি থাকে তবে দায়ী ব্যক্তিদের চিহ্নিত করতে বলা হয়েছিল।

এই তদন্ত কমিটিও বুধবার রিপোর্ট জমা দিয়েছে। কমিটির প্রধান অতিরিক্ত সচিব তরুণ কান্তি শিকদার বলেন, আমরা মন্ত্রণালয়ে রিপোর্ট জমা দিয়েছি। কী আছে রিপোর্টে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘‘স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বৃহস্পতিবার রিপোর্টের বিষয়ে ব্রিফ করবেন। ফলে এখনই বলা যাবে না, আমরা তদন্তে কী পেয়েছি।’’