কালিহাতী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হতে পারে করোনা চিকিৎসায় রোলমডেল

প্রকাশিত: ৯:০২ অপরাহ্ণ, জুন ৪, ২০২০ | আপডেট: ৯:০২:অপরাহ্ণ, জুন ৪, ২০২০
ছবি: টিবিটি

টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স করোনা চিকিৎসায় হতে পারে সারাদেশের জন্য রোলমডেল। করোনা ভাইরাস সংক্রমণকালে এই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। করোনায় আক্রান্ত রোগীদের সেবা দেয়ার জন্য ‘ডক্টর সেফটি কার্ট’নামে একটি বিশেষ গাড়ি নির্মাণ করা হয়েছে। এ কার্টের মাধ্যমে ডাক্তার নিজের সুরক্ষা নিশ্চিত করে করোনা ওয়ার্ডে রাউন্ড দিতে পারবেন। গাড়িতে থাকা মাইক্রোফোনের মাধ্যমে রোগীর সঙ্গে কথা বলে ডাক্তার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবেন। করোনায় আক্রান্ত রোগীদের স্পর্শ ছাড়াই একজন চিকিৎসক সেবা দিতে পারবেন।

কালিহাতী উপজেলা পরিষদের অর্থায়নে কালিহাতী উপজেলা প্রশাসনের পরিকল্পনা ও উদ্যোগে এটি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। বৃহস্পতিবার স্পেশালাইজড সেফটি কার উদ্বোধন করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য হাছান ইমাম খান সোহেল হাজারী। এসময় উপস্থিত ছিলেন কালিহাতী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামীম আরা নিপা, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আনসার আলী, টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের সভাপতি জাফর আহমেদ, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সাইদুর রহমান প্রমুখ।

করোনার বিশেষ ব্যবস্থা সম্পর্কে কালিহাতী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামীম আরা নিপা জানান, কালিহাতীতে প্রথম যে রোগী করোনায় আক্রান্ত হন তিনি তার আগে এই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিয়েছেন। এটা নিশ্চিত হওয়ার পর সংশ্লিষ্ট চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়। তখন স্বাস্থ্যসেবা মারাত্মকভাবে বিঘিœত হয়। এরপর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়, কিভাবে ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মীদের সুরক্ষা নিশ্চিত করা যায়।

এ নিয়ে অনেক ভাবনার পর বিশেষায়িত এ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়। আউটডোরে রোগী দেখার জন্য চারকক্ষ বিশিষ্ট ডক্টর সেফটি চেম্বারের ব্যবস্থা করা হয়। এর ভেতর থেকে মাইকের মাধ্যমে বাইরের রোগীদের সঙ্গে কথা বলে তথ্য সংগ্রহ করা এবং প্রয়োজনীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়। রোগীর টিকেট, ব্যবস্থাপত্র ও ওষুধ পেতে কারো সংস্পর্শে যেতে হয় না। তিনি আরো জানান, করোনার নমুনা সংগ্রহের জন্য স্থানীয়ভাবে ওয়ার্কশপে স্পেশালাইজড সেফটি কার তৈরি করা হয়েছে। এ রগাড়ির ভেতর থেকে বাইরে থাকা রোগীর নমুনা সংগ্রহ করা হয়। এতে স্বাস্থ্যকর্মী নিরাপদ থাকবে। দক্ষিণ কোরিয়া ও ভারতের চিকিৎসা ব্যবস্থার আদলে এ কার তৈরি করা হয়েছে। এ কারের মাধ্যমে প্রতিদিন ৫০ জনের নমুনা সংগ্রহ করা যাবে।

নমুনা পরীক্ষা করতে আসা মো. সিয়াম তরফদার নামে এক রোগী বলেন, গাড়ির ভেতর থেকে নমুনা নেয়া হলো। এটা খুব ভালো মনে হলো। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিক্যাল টেকনোলজিস্ট (ল্যাব) আনিসুর রহমান বলেন, নমুনা সংগ্রহ করতে এখন নিরাপদ থাকা যাবে। কালিহাতী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সাইদুর রহমান বলেন, বিশেষ এ ব্যবস্থার কারণে চিকিৎসক ও রোগী নিরাপদ থাকবে। রোগীদের স্পর্শ ছাড়াই একজন চিকিৎসক সেবা দিতে পারবেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামীম আরা নিপা বলেন, বিশেষ এ ব্যবস্থায় ডাক্তার ও রোগী নিরাপদ থাকবেন। এ ব্যবস্থা অন্য স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিতে পারলে ঝুঁকিমুক্ত থেকে করোনার চিকিৎসা দেয়া সম্ভব হবে।