কালুখালীর মদাপুর ইউপি চেয়ারম্যানসহ দুইজনকে কুপিয়ে জখম

প্রকাশিত: ১০:০০ অপরাহ্ণ, জুন ১৬, ২০১৯ | আপডেট: ১০:০০:অপরাহ্ণ, জুন ১৬, ২০১৯
ছবি: টিবিটি

রাজবাড়ী জেলার কালুখালী উপজেলার মদাপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আবুল কালাম মৃদ্ধা (৪৬) কে কুপিয়েছে জখম করেছে দূবৃত্তরা।এসময় সাথে থাকা তার ভাগ্নে চঞ্চল মন্ডল (১৮) কেও কুপিয়ে জখম করা হয়।

রোববার (১৬ জুন) বিকেল ৫টার দিকে জেলা সদরের ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সামনের সড়কে দূবৃত্তরা তাদের উপরে হামলা করে। এ সময় তাদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে দৃর্বত্তরা পালিয়ে যায়।পরে স্থানীয়রা রক্তাক্ত অবস্থায় তাদের দুজনকে উদ্ধার করে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

আহত অবস্থায় তাদের কে উদ্ধার করে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগে নিয়ে আসে স্থানীয়রা।পরে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজধানী ঢাকায় রেফার্ড করা হয়েছে।

চেয়ারম্যান আবুল কালাম মৃদ্ধা মদাপুর ইউনিয়নের ফেলু মুন্সির ছেলে ও তার ভাগ্নে চঞ্চল মন্ডল ঐ গ্রামের ইউনুস মন্ডলের ছেলে।

খবর পেয়ে দূবৃত্তদের হামলায় আহত চেয়ারম্যান কে দেখতে হাসপাতালে ছুটে আসেন কালুখালী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী কাজী সাইফুল ইসলাম ও স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী সাংবাদিক নুরে আলম সিদ্দিকী হকসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীরা।

নৌকা প্রতীকের প্রার্থী কাজী সাইফুল ইসলাম অভিযোগ করে বলেন,মদাপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান তার সমর্থনে নৌকা প্রতীকে ভোট প্রার্থনা করে আসছিলেন।এ কারনে দূবৃত্তরা তার উপরে হামলা চালিয়েছে।

সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাঃ মোঃ নাহিদ রায়হান জানিয়েছেন,আহতদের শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।চেয়ারম্যান আবুল কালাম মৃদ্ধা আগে থেকেই ডায়াবেটিস ও হৃদ রোগে ভূগছেন। তার হার্টে রিং পরানো রয়েছে।তাই তার সাথের স্বজনেরা তাকে ও তার ভাগ্নে কে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় রেফার্ড নিয়েছে।

রাজবাড়ীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ ফজলুল করিম সাংবাদিকদের জানান,ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে।ঘটনার সাথে জড়িতদের ধরতে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।

উল্লেখ্য, আগামী ১৮ জুন রাজবাড়ী জেলার কালুখালী উপজেলা পরিষদ নির্বাচন।এই নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন ৩জন প্রার্থী।নির্বাচনী প্রচারনার শেষে মুহূর্তে বাড়ছে সংঘাতের ঘটনা।