কিশোরগঞ্জ কারাগারে আরও এক বন্দীর হঠাৎ মৃত্যু!

প্রকাশিত: ৮:৪৭ অপরাহ্ণ, মার্চ ৬, ২০২১ | আপডেট: ৮:৪৭:অপরাহ্ণ, মার্চ ৬, ২০২১

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি: কিশোরগঞ্জ কারাগারে কয়েকদিনের ব্যবধানে আরও এক বন্দীর মৃত্যুতে জেলা কারাগারের আভ্যন্তরীণ ব্যবস্থাপনার মান নিয়ে জনমনে ক্রমেই সন্দেহ বৃদ্ধি পাচ্ছে ।

শনিবার (৬ মার্চ) বেলা ১১টায় শাহীন মিয়া (৫০) নামে ঐ কয়েদিকে কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। চিকিৎসক জানান, হাসপাতালে আসার আগেই রোগীর মৃত্যু হয়।

শাহীন জেলার ভৈরব পৌরসভার জগন্নাথপুর মধ্যপাড়ার শাহজাহান মিয়ার ছেলে। কিশোরগঞ্জ ও নরসিংদী জেলায় পৃথক দুটি হত্যা ও ডাকাতির মামলায় তার ৬০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড হয়েছিল। ঢাকার কেরানীগঞ্জ কেন্দ্রীয় কারাগারে সাজা খাটা অবস্থায় সেখান থেকে গত ২০ জানুয়ারি তাকে কিশোরগঞ্জ জেলা কারাগারে পাঠানো হয়ে বলে জানায় কারাসূত্র।

কিশোরগঞ্জ জেলা কারাগারের জেলার নাশির আহমেদ জানান, শনিবার সকাল ১০টার দিকে কয়েদি শাহীন মিয়া বুকে ব্যাথা অনুভব করার কথা জানালে ১০টা ১০মিনিটে তাকে কারাগার থেকে বের করে দ্রুত তাকে শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। বেলা ১১টায় সেখানে নিয়ে যাওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে কয়েদি শাহীন মিয়ার মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক।

তিনি আরও জানান, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তার মৃত্যুর বিষয়টি পরিবারের লোকজনদের জানানো হয়েছে। এছাড়া লাশ ময়নাতদন্তের জন্য জেনারেল হাসপাতাল মর্গে নেওয়া হয়েছে।

শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. সন্দীপন সাহা জানান, রোগীকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়েছিল। সম্ভবত তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছিলেন। তার বুকে ব্যথা ও ঘাম হয়েছিল বলে রোগীর সঙ্গে আসা কারাগারের লোকজন জানিয়েছেন।

এ নিয়ে কয়েকদিনের ব্যবধানে জেলা কারাগারের অভ্যন্তরে ২ বন্দীর মৃত্যুতে স্থানীয় সচেতন মহলের মাঝেও সন্দেহের সৃষ্টি হয়েছে।