কিশোর নির্যাতনের অভিযোগে নড়াগাতী ইউপি চেয়ারম্যানসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশিত: ৬:৩১ অপরাহ্ণ, মে ১১, ২০২১ | আপডেট: ৬:৩১:অপরাহ্ণ, মে ১১, ২০২১

নড়াইলের কালিয়ায় কিশোর রাজু চৌধুরী (১৬) কে শুপারি চুরির অভিযোগে বেধড়ক মারপিটের ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান সহ ৩ জনের নামে মামলা হয়েছে। কালিয়া উপজেলার নড়াগাতি থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বাঐসোনা ইউপি চেয়ারম্যান শাহ মো.ফোরকান মোল্যা কর্তৃক কিশোর রাজুকে চড়-থাপ্পড় ও লাথি মারার একটি ভিডিও রোববার (৯ মে) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

রাজু উপজেলার পদ্মবিলা গ্রামের কাইয়ুম চৌধুরীর ছেলে। ওই ঘটনায় রাজুর বাবা বাদি হয়ে সোমবার রাতে উপজেলার নড়াগাতি থানায় চেয়ারম্যান ফোরকান মোল্যা সহ ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। চেয়ারম্যানসহ নির্যাতনকারিরা পলাতক রয়েছে।

পুলিশ জানায়,উপজেলার নড়াগাতী থানার পদ্মবিলা গ্রামের রাজু জলাডাঙ্গায় তার আত্মীয়ের বাড়িতে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে মধুপুর মহাশশ্মানের পাশদিয়ে যাওয়ার সময় চেয়ারম্যানের লোক রাজুকে শুপারি চোর সন্দেহে আটক করে। পরে বাঐসোনা ইউপি চেয়ারম্যান ফোরকান মোল্যা ঘটনাস্থলে এসে তাকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করে। ওই ঘটনার ধারণ করা ভিডিওটি চেয়ারম্যান ফোরকান মোল্যা নামের একটি ফেসবুক আইডিতে রোববার (৯মে) ছড়িয়ে পড়লে প্রশাসনসহ এলাকায় তোলপাড়ের সৃষ্টি হয়।

সোমবার (১০মে) রাতে রাজুর বাবা বাদি হয়ে ফোরকান মোল্যা ও তার চাচাতো ভাই শাহীন মোল্যার নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা ১ একজনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন।

চোর সন্দেহে নির্যাতনের ভিডিওর বিষয়ে সরেজমিনে উপজেলার মধুপুর গ্রামের বাসিন্দাদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, প্রায় ৩-৪ মাস আগে কিশোর রাজুকে আওয়ামী লীগ নেতা ও ইউপি চেয়ারম্যান ফোরকান মোল্যা অমানবিক শারীরিক নির্যাতন করে। বাঐসোনা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও নড়াগাতি থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহ মো.ফোরকান মোল্যা বলেন,‘শুপারি চোর ধরার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান।

আটক চোরকে লোক দেখানো চড়-থাপ্পড় দিয়ে জনরোষ ও গনধোলাই থেকে রক্ষা করেন। কে বা কারা গোপনে ভিডিও ধারণ করে তার রাজনৈতিক ও পারিবারিক সুনাম নষ্ট করতে ফেক আইডি খুলে ফেসবুকে ছেড়ে দিয়েছে।’ নড়াগাতি থানার ওসি রোকসানা খাতুন বলেন,‘চোর সন্দেহে কিশোর নির্যাতনের ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা ফোরকান মোল্যাসহ ৩জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে। পলাতক আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশী অভিযান অব্যাহত রয়েছে।’