কি হবে সাব্বিরের?

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৫:১৭ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১, ২০১৮ | আপডেট: ৫:১৭:পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১, ২০১৮
ফাইল ছবি

নারীঘটিত ব্যাপার এবং দর্শকদের গালিগালাজ ও পেটানোর অভিযোগে একাধিকবার আর্থিক জরিমানা এবং ঘরোয়া ক্রিকেটে ছয় মাসের নিষেধাজ্ঞার পর এবার আরও বড় শাস্তির মুখে পড়তে যাচ্ছেন জাতীয় দলের ব্যাটসম্যান সাব্বির রহমান। কী হবে এবার? সূত্র বলছে, এবার সাব্বিরের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে সাময়িক যতি টেনে দিতে পারে!

বিতর্কিত নানা কর্মকাণ্ডের কারণে নাসির হোসেন ও মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের সঙ্গে সাব্বির রহমানকেও শনিবার (১ সেপ্টেম্বর) তলব করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। তাদের ডাকার সুনির্দিষ্ট কারণ এখনও জানানো না হলেও সাম্প্রতিক বিতর্কিত অভিযোগ নিয়েই সেখানে আলোচনা হবে বলে জানিয়েছে বিসিবি সূত্র।

এর আগে, গত বৃহস্পতিবার (৩০ আগস্ট) সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার আগে একজন সিনিয়র ক্রিকেটারের সঙ্গে আলোচনায় সাব্বির ও বাকি দুইজনের বিষয়ে আলোচনা করেন নাজমুল হাসান পাপন।

১ সেপ্টেম্বর তাদের বিষয়ে কী সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে, তার সম্ভাব্যতা নিয়েও আলোচনা হয় তাদের মাঝে। সেখানেই সাব্বিরের বিষয়ে কঠিন সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা উঠে আসে বলে জানা যায়।

সূত্র জানায়, সেই আলোচনায় সাব্বিরের ওপর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে সাময়িক নিষেধাজ্ঞা আরোপের ইঙ্গিত দেওয়া হয়। আগের শৃঙ্খলাজনিত পদক্ষেপের বিবেচনায় নিলে, নিষেধাজ্ঞা হতে পারে কমপক্ষে ছয় মাসের।

তবে তার জন্য ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলার সুযোগ রাখা হতে পারে। কারণ আগামী বছর অনুষ্ঠিত হবে ক্রিকেট বিশ্বকাপ। সেখানে সুযোগ পাওয়ার দরজা খোলা রাখতেই ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলার সুবিধাও বন্ধ না রাখার সিদ্ধান্ত আসতে পারে।

বিসিবি সূত্র মতে, ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলার সুবিধাটুকুন সাব্বির তার বয়স আর ক্রিকেটীয় প্রতিভা বিবেচনায়ই পেতে পারেন।

বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় বিসিবি সভাপতি পাপন কঠিন শাস্তির ইঙ্গিত দিয়ে বলেন, ‘কোনো ক্রিকেটার বারবার একই ভুল করলে সে কঠিন শাস্তি পাবে। তিনি জানান, বারবার বিতর্কে জড়ানো ক্রিকেটারদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বেশ কিছু বিষয় মাথায় রেখে এগোচ্ছে বিসিবি। এর মধ্যে ক্রিকেটারদের মানসিকভাবে আরও শক্তিশালী করে তোলা ও খেলায় মনযোগ বাড়াতে মনোবিজ্ঞানীর শরণাপন্ন হওয়ার কথাও বলেছেন নাজমুল হাসান পাপন।

পাশাপাশি ক্রিকেটারদের জন্য আচরণবিধি তৈরি করার সিদ্ধান্ত জানিয়ে পাপন বলেন, ‘এটা নিয়ে গাইডলাইন তৈরি করছি। এই গাইডলাইনে ক্রিকেটারদের স্বাক্ষর থাকবে। তাহলে তাদের বিরুদ্ধে কোনো সিদ্ধান্ত নিতে সহজ হবে। সবকিছুর পর কিন্তু তাদের নিজেদেরই ভাল হতে হবে। জোর করে কাউকে ভাল করানো যায় না। ওরা নিজেরা ভাল না হলে আমাদের কিছু করার নাই, চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতেই হবে।’