কুবির ‘এ’ ও ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা সম্পন্ন

আবু নাঈম আবু নাঈম

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৮:২৭ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৮, ২০১৯ | আপডেট: ৮:২৭:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৮, ২০১৯
ছবি: টিবিটি

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুবি) ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) ১ম শ্রেণীর ‘এ’ ও ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার (৮ নভেম্বর) সকাল ১০টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত এ ইউনিট এবং বিকাল ৩টা থেকে ৪টা পর্যন্ত বি ইউনিটের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষায় বেশ কয়েকটি কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলা ও অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ভর্তি পরীক্ষা কেন্দ্রীয় কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কোন পরীক্ষার্থী কেন্দ্রে মোবাইল ফোন, মানিব্যাগসহ কোন প্রকার ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস সঙ্গে নিয়ে প্রবেশ করতে পারবে না। এমন সিদ্ধান্তের পরেও ‘এ’ ইউনিটের পরীক্ষা চলাকালে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারী কলেজ (ডিগ্রী শাখা-২) কেন্দ্রে পরীক্ষার্থীদের মোবাইল, ব্যাগসহ হলে ঢুকতে দেখা যায়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কুমিল্লা­ ভিক্টোরিয়া সরকারী কলেজ (ডিগ্রী শাখা-২) কেন্দ্রের সমন্বয়ক মেহেদী হাসান বলেন, ‘প্রশাসনের সহযোগীতায় পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়েছে। ম্যানেজমেন্ট এর ত্রুটির কারণে এমনটা হয়েছে।’

এই কেন্দ্রের প্রধান সমন্বয়ক ড. মোহাম্মদ সোলায়মান বলেন, ‘বিষয়টি আমার নজরে আসে নাই। এগুলো প্রশাসন এবং নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা ব্যাক্তিরা দেখবে।’

‘এ’ ইউনিটের প্রধান ড. সজল চন্দ্র মজুমদার বলেন, ‘দু’একটা বিচ্ছিন্ন ঘটনা ব্যতীত সার্বিক দিক থেকে পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়েছে। যে যে কেন্দ্রে বিশৃংখল ঘটনা ঘটেছিল তা আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডি এবং কেন্দ্র সমন্বয়কের সাথে আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করেছি।’

এদিকে ‘বি’ ইউনিটের পরীক্ষা চলাকালে গভ.ল্যাবরেটরি হাইস্কুল, কুমিল্লা পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট কেন্দ্রে মোবাইল ব্যাগসহ হলে প্রবেশ করে পরীক্ষার্থীরা। পরে কেন্দ্র সমন্বয়ক তাজুল ইসলামকে অবগতি করা হলে সেগুলো বাহিরে রাখা হয়।

এছাড়াও কয়েকটি কেন্দ্রে নির্ধারিত সময়ের পাঁচ থেকে দশ মিনিট পর শিক্ষার্থীদের ডুকতে দেওয়া না হলেও বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রে ১৫ মিনিট পর একাধিক শিক্ষার্থীকে ঢুকতে দেওয়া হয়।

‘এ’ ইউনিটের(বিজ্ঞান ও প্রকৌশল অনুষদ) পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে ১৭ হাজার ৪৩৪ জন। আবেদন করেছিল ২৬ হাজার ৯৭৫ জন। উপস্থিতির হার ছিল ৬৫%।

এছাড়া ‘বি’ ইউনিটে (কলা, সামাজিক বিজ্ঞান ও আইন অনুষদ) পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ২০ হাজার ৩০৪ জন শিক্ষার্থী। আবেদন করেছিল ২৮ হাজার ২৯৫ জন। উপস্থিতির হার ছিল ৭২ শতাংশ।

উল্লেখ্য, আগামীকাল (শনিবার) সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত ‘সি’ ইউনিটের (ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ) ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এতে চারটি বিভাগে ২৪০টি আসনের বিপরীতে ১২ হাজার ৮০৭ জন শিক্ষার্থী আবেদন করেছে।