কুমারখালীতে বৃষ্টির আশায় নামাজ ‘ ইস্তেখারা ‘ অনুষ্ঠিত

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৫:১১ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২১, ২০২১ | আপডেট: ৫:১১:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২১, ২০২১

মিজানুর রহমান নয়ন, কুমারখালী (কুষ্টিয়া) প্রতিনিধি: চৈত্রের তাপদাহ শেষে বৈশাখের আগমন। মানুষের একটু আশা বৈশাখী ঝড়বৃষ্টির। মাটঘাট খালবিল পানিতে ভরে উঠবে। প্রকৃতি সাজবে নতুন সাজে। কিন্তু বৈশাখী ৮ দিন পেরিয়ে গেলেও কুষ্টিয়ার কুমারখালীর আকাশে নেই মেঘের ঘনঘটা, নেই বৃষ্টি।

তীব্র তাপদাহে জনজীবন বিপর্যস্ত। বৃষ্টির অভাবে উপজেলায় পানির লেয়ার নিচে নেমে গিয়েছে। দেখা দিয়েছে তীব্র পানি সংকট। পানির অভাবে সেচ কাজও ব্যাহত হচ্ছে। হুমকির মুখে কৃষি ব্যবস্থা।

তাই একফোঁটা বৃষ্টির আশায় করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে কুষ্টিয়া কুমারখালীতে বিশেষ নামাজ ( সালাতুল ইস্তেখারা ) আদায় করেছে গ্রামবাসী। এসময় অধিকাংশ মানুষের মুখেই ছিলনা মাস্ক। মানা হয়নি স্বাস্থ্যবিধি।

বুধবার (২১ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ৯ টায় উপজেলার চর জগ্ননাথপুর গ্রামের খোলা আকাশের নিচে ফাঁকা মাঠে নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। নামাজ শেষে অনাবৃষ্টি থেকে মুক্তির জন্য বিশেষ মোনাজাত পরিচালনা করেন চর জগ্ননাথপুর গ্রামের জাসে মসজিদের ইমাম আলহাজ্ব মওলানা ইদ্রিস আলী।

এ বিষয়ে আলহাজ্ব মওলানা ইদ্রিস আলী বলেন, দীর্ঘদিন বৃষ্টি না হওয়ায় মানুষ পানির জন্য খুব বিপদে আছে। যদি তাপদাহে মানুষের সমস্যা ও দুঃখ কষ্ট হয়। তাহলে বৃষ্টি বা পানির জন্য আল্লাহ সালাতের মাধ্যমে চাইতে বলেছেন। আল্লাহর কাছে চাওয়া সুন্নাত। আর চাওয়াকে আরবিতে সালাতুল ইস্তেখারা বলা হয় অর্থাৎ পানির জন্য দোয়া করা।

উল্লেখ্য যে, গত সোমবার (১৯ এপ্রিল) একই স্থানে ওই এলাকার মানুষ প্রথমবারের বৃষির জন্য সালাতুল ইস্তেখারা নামাজ আদায় করেছিলেন।