কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন: করোনার নমুনা সংগ্রহে জনবল সংকট চরমে

শাহজাদা এমরান শাহজাদা এমরান

কুমিল্লা প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৭:২৩ অপরাহ্ণ, জুন ৫, ২০২০ | আপডেট: ৭:২৩:অপরাহ্ণ, জুন ৫, ২০২০

পর্যাপ্ত জনবল নেই। তাই করোনার নমুনা সংগ্রহ কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। চাহিদা অনুযায়ী নমুনা সংগ্রহ করা যাচ্ছে না। সঠিক সময়ে করোনার নমুনা দিতে না পেরে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে অনেকে।

কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন সূত্রে জানা যায়, নগরীর ২৭ টি ওয়ার্ডে করোনার নমুনা সংগ্রহ করার জন্য লোকবল রয়েছে আটজন। যা চাহিদার চেয়ে অনেক কম। এত কম সংখ্যক লোকবল দিয়ে করোনার নমুনা সংগ্রহ করা সম্ভব হচ্ছে না। এছাড়াও আটজনের মধ্যে চারজনের বয়স পঞ্চাষোর্ধ্ব। ওই চারজনের শারিরীক সক্ষমতা অনেক কম।

কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের স্বাস্থ্য বিভাগের বেক্সিনেটর সুপারভাইজার পদে চাকরী করেন মোঃ জহিরুল ইসলাম। তিনি কুমিল­া সিটি কর্পোরেশনের মা ও শিশুর টিকাদান কর্মসূচি প্রকল্পে কর্মরত। সংক্রমণ দেখা দেয়ায় পর তাকে করোনা নমুনা সংগ্রহের কোÑঅর্ঢিনেটর করা হয়েছে। তার অধীনে চারজন টিকাদানকারী রয়েছেন। ওই টিকাদানকারী চারজনও করোনার নমুনা সংগ্রহ করছেন।

মোঃ জহিরুল ইসলাম জানান, করোনার নমুনা সংগ্রহের জন্য সিভিল সার্জন অফিস থেকে দুইজন এবং সিটি কর্পোরেশনের মাস্টার রোলের দুইজন লোক রয়েছে। সবমিলিয়ে আটজন। তবে সিটি কর্পোরেশনের মত এতবড় এলাকার জন্য আটজন লোক পর্যাপ্ত নয়। প্রতিনিদিন অন্তত এক থেকে দেড়’শ জনের বেশী লোকজনের নমুনা সংগ্রহের আবেদন আসে। কিন্তু চাইলেও এত কম সংখ্যাক লোকবল নিয়ে এত বেশী লোকজনের নমুনা সংগ্রহ করা যায় না। এছাড়াও স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে বলা হয়েছে বেলা ১২ টার আগেই সংগ্রহ করা নমুনা পাঠাতে। কিন্তু নমুনা সংগ্রহ করতে করতেই বিকেল হয়ে যায়।

সিটি কর্পোরেশন সূত্রে জানা যায়, করোনা সংক্রমণের তিনমাস পার হলো। এর মধ্যে সিটি কর্পোরেশন এলাকায় করোনার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ৮৩৩ টি। রিপোর্ট এসেছে আটশ’টির। যার মধ্যে করোনা পজেটিভ এসেছে ১৬০ জনের। তার মধ্যে মারা গেছেন চারজন। সুস্থ হয়েছেন ছয়জন। তবে পর্যাপ্ত লোকবল থাকলে আরো বেশী নমুনা সংগ্রহ করা যেত।

লোকবল সংকটের বিষয়ে কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোঃ মনিরুল হক সাক্কুর বলেন, কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আইসিইউ উদ্বোধন পরে বিষয়টি স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলাম মহোদয়ের কাছে উপস্থাপন করি। তিনি নিজের তহবিল থেকে পিসিআর মেশিনের জন্য এক কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন।

এছাড়াও করোনার নমুনা সংগ্রহের জন্য আরো আটজন লোকবল নিয়োগ দেয়ার অনুমোদন হয়। মেয়র মনিরুল হক সাক্কু আরো বলেন,নমুনা সংগ্রহ করলেই হবে না সে জন্য পর্যাপ্ত কীটের ব্যবস্থা করতেও তৎপর রয়েছি। আশা করি আস্তে আস্তে সব কিছু হয়ে যাবে।