কেন নতুন লোগো আনলো ফেসবুক?

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের বিশ্লেষেণ

প্রকাশিত: ৯:০৫ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৫, ২০১৯ | আপডেট: ৯:০৫:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৫, ২০১৯

ফেসবুকের নতুন কোম্পানি লোগো ঘোষিত হয়েছে। ফেসবুক অ্যাপের থেকে ফেসবুক কোম্পানিকে আলাদা করার জন্যই এই লোগো। এর আগে এ বছরেই তাদের নিজস্ব সংস্থা হোয়াটসঅ্যাপ ও ইনস্টাগ্রামে নিজেদের নাম সংযুক্ত করা শুরু করেছে তারা।

ফেসবুকের নতুন লোগো কেন?

ফেসবুক কোম্পানির জন্য নতুন এই লোগো তৈরি করা হয়েেছে। ফেসবুকের যে আদত সোশাল নেটওয়ার্ক তা থেকে ফেসবুক কোম্পানি আলাদা তো বটেই, এখন তারা অনেক কিছুই দিয়েও থাকে। ফেসবুকের নিজস্ব প্রোডাক্টের ব্র্যান্ডিংয়ের জন্য এই লোগো। নতুন লোগোতে হোয়াটসঅ্যাপ ও ইনস্টাগ্রামের রং থাকবে। এই দুই অ্যাপেরই এক কোটিরও বেশি ইউজার এবং ইতিমধ্যেই তারা ফেসবুক অ্যাপকে জনপ্রিয়তার ব্যাপারে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছে।

ইনস্টাগ্রামে যেমন ‘ফ্রম ফেসবুক’ বলে যে লোগো তাতে গোলাপি ও কমলা রং থাকবে যা ইনস্টাগ্রাম লোগোর সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ। হোয়াটসঅ্যাপে যে ‘ফ্রম ফেসবুক’ লোগো থাকবে তার রং হবে সবুজ, হোয়াটসঅ্যাপের রঙের সঙ্গে মিলিয়ে।

ফেসবুকের চিফ মার্কেটিং অফিসার আন্তোনিও লুসিও এই লোগোর ব্যাপারে ঘোষণা করেছেন একটি ব্লগ পোস্টে। “আমরা আজ থেকে কোম্পানির ব্র্যান্ডিং আপডেট করছি, যাতে কোন কোন প্রোডাক্ট ফেসবুকের সে কথা স্পষ্ট বোঝা যায়।”

প্রাথমিক যা প্রতিক্রিয়া পাওয়া গিয়েছে তাতে এ লোগোকে সাধারণ বলে বর্ণনা করা হচ্ছে।

ফেসবুকের নতুন লোগো কোথায় দেখা যাবে?

ফেসবুক জানিয়েছে সমস্ত প্রোডাক্ট এবং মার্কেটিং ক্ষেত্রে নতুন লোগো তারা শীঘ্রই ব্যবহার করবে।

সোশাল নেটওয়ার্কের ওয়েবসাইটের বাইরে তারা কোম্পানির নতুন ওয়েবসাইটও আনতে চলেছে। ফেসবুক চায় তারা কোন কোন সংস্থার মালিক তা লোকে জানুক। মেসেঞ্জার, ইনস্টাগ্রাম, হোয়াটসঅ্যাপ, অকুলাস, পোর্টাল এবং ক্যালিব্রাতে খুব শীঘ্রই ‘ফ্রম ফেসবুক’ লোগো থাকবে। ২০১৯ সালের জুন মাস থেকে তারা তাদের অ্যাপে ‘ফ্রম ফেসবুক’ লোগো আনা শুরু করেছিল।

কিন্তু ফেসবুক তাদের লোগো ইনস্টাগ্রাম এবং হোয়াটসঅ্যাপে লাগানোর জন্য এত উদগ্রীব কেন?

ব্লুমবার্গকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে লুসিও বলেছেন, “সমস্ত গবেষণাতেই দেখা গেছে জেনারেশন জেড থেকে শুরু করে মিলেনিয়ালরা ব্র্যান্ডের উৎস জানতে চান। আমাদের ব্যবহারকারীদের ব্যাপারে আমাদের আরও স্বচ্ছ হতে হবে, যাতে তাঁরা জানতে পারেন যে সবই একটি সংস্থা থেকেই আসছে।”

পিউ রিসার্চ স্টাডি উদ্ধৃত করে তিনি আরও বলেন, মাত্র ২৯ শতাংশ মার্কিন জানেন, ইনস্টাগ্রাম এবং হোয়াটসঅ্যাপ এ দুটি ফেসবুকের মালিকানাধীন।

ইনস্টাগ্রাম এবং ফেসবুক এ দুই অ্যাপের জনকরা ফেসবুকের সিইও মারক জুকেরবার্গের সঙ্গে খারাপ সম্পর্কের কারণে সংস্থা ছেড়ে দিয়েছেন। হোয়াটসঅ্যাপের সহ-নির্মাতা ব্রায়ান অ্যাকটন এমনকী কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা কেলেংকারির সময়ে ‘ডিলিট ফেসবুক’-এর ডাকও দিয়েছিলেন।