কোরআনের অবমাননাকারী ব্লগারের জামিনে হেফাজতের বিক্ষোভ

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১:২৪ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৩১, ২০১৮ | আপডেট: ১:২৪:অপরাহ্ণ, আগস্ট ৩১, ২০১৮

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় মহাসচিব আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী বলেছেন, কুখ্যাত নাস্তিক ব্লগার আসাদ নূর কোরআনের অবমাননা ও রাসূলের সঙ্গে বেয়াদবি করেছে। ইসলামকে নিয়ে কটূক্তি করেছে। এত কিছুর করার পরও কোনো প্রকার শাস্তি ছাড়াই সরকার কেন তাকে জামিন দিল। এটা আমাদের প্রশ্ন সরকারের কাছে।

শুক্রবার জুমার নামাজের পর হাটহাজারীতে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ উপজেলা শাখার উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল পূর্ববতী প্রতিবাদ সমাবেশে ডাকবাংলো চত্বরে এসব কথা বলেন তিনি ।

হেফাজত মহাসচিব বলেন, সরকারও মুসলমান, আমরাও মুসলমান। আমাদের দাবি আসাদ নূরকে ফের আটক করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আওতায় আনতে হবে। যদি তা না হয় তাহলে আরও কঠিন কর্মসূচি দিতে বাধ্য হব।

বাবুনগরী বলেন, মুসলিম অধ্যুষিত বাংলাদেশে সংখ্যালঘু হিসেবে হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান সবাই থাকতে পারবে। কিন্তু কোনো নাস্তিক ব্লগার যারা কোরআনের অবমাননা, রাসুলের সঙ্গে বেয়াদবি করা ও ইসলামকে নিয়ে কটূক্তিকারী এ দেশে থাকতে পারবে না। হয় তারা জেলে যাবে, নয় তাদেরকে বাংলাদেশ ছাড়তে হবে। আমাদের এ আন্দোলন সরকার বা কোরো পার্টির বিরুদ্ধে নয়। আমরা সরকার বা রাষ্ট্রবিরোধী নই। আমাদের লড়াই বা আন্দোলন নাস্তিকদের বিরুদ্ধে। এসব নাস্তিকদের বিরুদ্ধে আমাদের আন্দোলন ছিল, আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে।

হেফাজতে ইসলামের হাটহাজারী উপজেলা শাখার সহ-সভাপতি মেখলের মুফতি মোহাম্মদ আলীর সভাপতিত্বে দফতর সম্পাদক মাওলানা কামরুল কাসেমীর সঞ্চালনায় প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী, প্রচার সম্পাদক মাওলানা আনাস মাদানী, মুফতি হাবিবুর রহমান কাসেমী, মাওলানা হাবিবুল্লাহ নদবী, মাস্টার আহসান উল্লাহ, মাওলানা জাহাঙ্গীর মেহদী, মাওলানা মোহাম্মদ শফিউল আলম, মাওলানা এমরান সিকদার, মাওলানা হাফেজ মাসউদুর রহমান, হাফেজ আব্দুল মাবুদ, মাওলানা মো. মহিউদ্দিন, মাওলানা ইকবাল মাদানী, মাওলানা কাইযুম ফতেপুরী, মাওলানা আসাদুল্লাহ, মাওলানা মিজান উদ্দিন ও হাফেজ আমিন প্রমুখ।

সমাবেশে প্রতিবাদ কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী বলেন, আসাদ নুর জামিন পেয়ে প্রকাশ্যে নাস্তিকতা ছড়াচ্ছে। নাস্তিকদের সঙ্গে আড্ডায় মেতেছে উঠেছে। আল্লাহ, মহানবী (সা.), কুরআন অবমাননাকারীদের ফাঁসি না দিয়ে তাদের নিরাপদে বিচরণের সুযোগ দিয়ে ৯২ ভাগ মুসলমানদের অন্তরে চরমভাবে আঘাত করা হয়েছে। যা কোনো মু’মিন মুসলমান মেনে নিতে পারে না।

হেফাজেতর কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক আনাস মাদানী বলেন, কেউ মহান আল্লাহ, নবীজী (সা:) ও কুরআন অবমাননা করলে আমরা ঘরে বসে থাকতে পারি না। এদের প্রতিরোধ করা ঈমানী দায়িত্ব। তাই অবিলম্বে কুলাঙ্গার, নাস্তিক আসাদ নুরকে পুনরায় গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানের জন্য আমরা সরকারের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি।

প্রতিবাদ সমাবেশ শেষে হেফাজত নেতৃবৃন্দ ডাক বাংলো চত্বর থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিলটি বের করে। কয়েক সহস্রাধিক তৌহিদি জনতার অংশ নেওয়া মিছিলটি চট্টগ্রাম-খাগড়াছড়ি-রাঙ্গামাটি মহাসড়কের মডেল থানার মোড়, বাস স্টেশন মোড়, জাগৃতি মোড়, কাচারী রোড হয়ে মাদ্রাসার গেইটে এসে মুনাজাতের মাধ্যমে শেষ হয়।