কোহলিই একমাত্র টেন্ডুলকারের কাছাকাছি আছে : সাকলায়েন মুশতাক

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৩:১৩ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৭, ২০১৮ | আপডেট: ৩:১৩:অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৭, ২০১৮

ভারতের ক্রিকেট ঈশ্বর শচীন টেন্ডুলকারের ধারেকাছে যাওয়া অনেক বড় ব্যাপার। ক্রিকেট ইতিহাসের কিংবদন্তি এই ব্যাটসম্যানকে শুধু তুলনা করা হয় স্যার ডন ব্র্যাডম্যানের সঙ্গে। তার অনেক রেকর্ডে অবশ্য ভাগ বসিয়েছেন বর্তমান ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ভয়ংকরতম এই ব্যাটসম্যানের প্রশংসা করে পাকিস্তানের স্পিন গ্রেট সাকলায়েন মুশতাক বলেছেন, বর্তমান খেলোয়াড়দের মধ্যে একমাত্র কোহলিই মানের দিক থেকে সমসাময়িককালে এ কিংবদন্তির কাছাকাছি চলে এসেছেন।

ভারতীয় বার্তা সংস্থা প্রেস ট্রাস্ট অব ইন্ডিয়ার (পিটিআই) সাথে একান্ত আলোচনায় সাকলায়েন বলেন, ‘একজন ব্যাটসম্যান হিসেবে শচিন ছিলেন খুবই বড় মাপের একজন খেলোয়াড়। দুই যুগের সঙ্গে আমি তুলনা করতে পারি না। তবে বিরাটই একমাত্র খেলোয়াড় যিনি তার কাছাকাছি চলে এসেছেন।’

ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের স্পিন বোলিং পরামর্শক সাকলায়েন বলেন, চলমান পাঁচ টেস্ট সিরিজে ভারতীয় দলের ঘুড়ে দাঁড়ানো অনেকটাই নির্ভর করছে ব্যাটিং লাইনআপে কোহলি কিভাবে নেতৃত্ব দেবেন তার ওপর।

তিনি বলেন, ‘ট্রেন্টব্রিজে তার (কোহলি) খেলা নিয়ে আমরা ইংলিশ সাপোর্ট স্টাফরা নিজেদের মধ্যে আলোচনা করছিলাম। এই তৃতীয় টেস্টে কেবলমাত্র জিমি এন্ডারসনই তাকে ৪০ বার আউটসাইডে বল দিয়ে পরাস্ত করার চেষ্টা করেছেন। তবে পরের বলটিই তিনি আরো বেশি আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে খেলেছেন। বিরাট বল বাই বল, রান বাই রান, সেশন বাই সেশন খেলে। রান এবং জয়ের জন্য তার প্রচন্ড ক্ষুধা। যখন আপনার দলে তার মতো ক্ষুধার্ত কেউ থাকবে তখন তিনি নিজের ক্ষুধা মেটানোর জন্য সব কিছু করতে পারেন।’

সিরিজের প্রথম দুই টেস্ট হেরে ২-০ ব্যবধানে পিছিয়ে পড়ে ভারত। তবে কোহলির একটি সেঞ্চুরি ও ৯৭ রানে ভর করে ট্রেন্ট ব্রিজে তৃতীয় ম্যাচে জয়ী হয়ে ঘুড়ে দাঁড়ায় ভারত। ইংল্যান্ড এখন ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছে।

২০১৪ সফরে পুরোপুরি ব্যর্থ হলেও এবার ঠিক তার বিপরীত কোহলি। সাকলায়েন তাকে টেন্ডুলকারের সমকক্ষ হিসেবে দেখছেন।সাকলায়েন আরো বলেন, ‘কোহলি যেভাবে রান করছেন সেটা ইংল্যান্ডের জন্য বড় বিপদের। প্রথম টেস্টে আমি স্কোর বোর্ডে তাকিয়ে বলেছিলাম, ‘এটা ইংল্যান্ড বনাম কোহলি’। আপনি তাকে বাদ দিলে ইংল্যান্ডের জন্য খুব সহজ হয়ে যাবে।

‘আপনি যদি কোচিংয়ের দৃষ্টি থেকে দেখন, অন্য সবাই রান করেছে তার সঙ্গে ব্যাটিং করে। বিরাটের মতো একজন বিশ্বমানের ব্যাটসম্যান থাকলে আপনার পুরো দলের ব্যাটিং লাইনআপই তাকে ঘিরে জেগে উঠবে।’

গত ৬ টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকা ও ইংলিশ ব্যাটসম্যানদের দারুণ সমস্যায় ফেলা বলেন বর্তমান ভারতীয় পেস বোলারদেরও প্রশংসা করেন সাকলায়েন। তিনি বলেন, ‘প্রথম তিন টেস্টেও পরিসংখ্যানের দিকে চোখ বুলালে দেখবেন ভারতীয় পেসাররা ইংল্যান্ড পেসারদের তুলনায় বেশি গতিতে বোলিং করেছেন। গত সফরে এটা ঘটেছে? যেভাবে তারা কাজ করছে এবং নিজেদেরকে উপস্থাপন করছে, যেভাবে গতিতে বল ছুঁড়ছে ও বল মুভ করাচ্ছে, আপনি ভারতীয় বোলারদের লক্ষ্য করুন এবং আমি মনে করছি তারা যথার্থ ফাস্ট বোলার।’

‘তারা শারিরীক দিক ধেকে অনেক বেশি শক্তিশালী এবং এটা তাদের হাঁটাও রানিং দেখই বুঝা যায়। এটা থেকে প্রমাণিত হয় যে, তারা এ পর্যায়ে ভালো ফাস্ট বোলার হতে যথাযথভাবে কঠোর পরিশ্রম করছে এবং যে কোন বিবেচনায় বিশ্বে তারা পেশাদার।’

এসময় তিনি চলমান টেস্ট সিরিজে ভারতীয় দলের অলংকার অফ স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন সম্পর্কেও কথা বলেন, ‘বর্তমানের অশ্বিন একজন বিশ্বমানের স্পিনার। তার চার-পাঁচ বছর আগের কথা আমার মনে আছে, আমি বলেছিলাম সে একজন ভালো স্পিনার, তবে বিশ্ব মানের নয়। কিন্তু পরবর্তীতে আমি তার যোগ্যতা দেখেছি। তবে ভারতের বাইরে খেলা, পারফর্ম করা এবং শেখাটা তার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ছিলো। এখন তিনি যে কোন কন্ডিশনে খেলতে প্রস্তুত।’