কোহলির গ্রেপ্তার চেয়ে আদালতে মামলা

টিবিটি টিবিটি

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রকাশিত: ২:২২ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১, ২০২০ | আপডেট: ২:২২:অপরাহ্ণ, আগস্ট ১, ২০২০

জুয়াড়ি কিংবা জুয়া বিষয়টা যেন ভারতের সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িত। বেশ কয়েক বছর ধরেই ভারতের চালু হয়েছে বিভিন্ন অনলাইন জুয়ার অ্যাপ। আর সেই অনলাইন জুয়ার অ্যাপগুলোর বিজ্ঞাপন করে তরুণদের জুয়ায় উৎসাহ করার অভিযোগ তুলে বিরাট কোহলির গ্রেপ্তার চেয়ে মামলা দায়ের করা হয়েছে মাদ্রাজ হাই কোর্টে।

শুধু কোহলির নামেই নয় অভিনেত্রী তামান্না ভাটিয়া গ্রেপ্তারও চাওয়া হয়েছে ওই মামলায়। চেন্নাইয়ের এক আইনজীবী মামলা দায়ের করে দাবি করেছেন কোহলি ও তামান্নার মতো তারকাদের ব্যবহার করে অনলাইন জুয়ার কোম্পানিগুলো তরুণ সমাজের মগজ ধোলাই করছে এবং তাদের বিপথে ঠেলে দিচ্ছেন। এজন্য দুজনকেই আটক করা উচিত।

এই আইনজীবী সবরকমের অনলাইন জুয়া খেলার ওপর নিষেধাজ্ঞা চেয়ে বলেছেন যারা এই জুয়া চালাচ্ছেন এবং কোহলি-তামান্নাদের মতো বিখ্যাত ব্যক্তি যারা এর প্রসারে কাজ করছেন তাদের গ্রেফতার করে আইনের মুখোমুখি দাঁড় করানো হোক।

আবেদনে বলা হয়েছে, ভারতে জুয়া ফৌজদারি অপরাধ, আর এই অনলাইন জুয়ার কারণে তামিলনাড়ুর যুবসমাজের মধ্যে আত্মহত্যা বেড়ে গেছে। কারণ তরুণ-তরুণীরা বিশাল আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়ে হতাশ হয়ে পড়ছে।

আগামী মঙ্গল অথবা বুধবার এই রিট পিটিশনের ওপর শুনানি হতে পারে।

রিট পিটিশনার অ্যাডভোকেট সুরিয়াপ্রকাশম অনলাইন জুয়াকে ‘ব্লু হোয়েল চ্যালেঞ্জ’ গেমের সঙ্গে তুলনা করে বলেছেন, তরুণেরা প্রথমত সময় কাটানোর জন্য এটি খেলা শুরু করে, যা পরে আসক্তিতে পরিণত হয় কোহলি-তামান্নাদের মতো তারকাদের তারকাদের মাধ্যমে মগজধোলাইয়ের শিকার হয়ে। তারা চড়া সুদে অর্থ ধার করে, একটা পর্যায়ে ধার শোধ দিতে পারে না, তারপর জীবন শেষ করে সিদ্ধান্ত নেয়।

গুজব ছিল যে আনুশকা শর্মার সঙ্গে সম্পর্ক হওয়ার আগে এই তামান্নার সঙ্গে ২০১১-১২ সালের দিকে সম্পর্ক হয়েছিল কোহলির। একটি বিজ্ঞাপনের সূত্রে দুজন পরস্পরের কাছাকাছি আসেন।