কোয়েলের ডিমে চমকপ্রদ স্বাস্থ্য উপকারিতা!

প্রকাশিত: 5:38 PM, July 21, 2019 | আপডেট: 5:38:PM, July 21, 2019

পৃথিবীতে যত প্রকার খাদ্য উপযোগী ডিম আছে তার মধ্যে কোয়েল পাখির ডিম গুণে মানে এবং পুষ্টিতে সর্বশ্রেষ্ঠ। চল্লিশ বছর পার হলেই ডাক্তাররা মুরগির ডিম খেতে নিয়ন্ত্রণ করতে বলেন। কারণ নিয়মিত মুরগির ডিম খেলে কোলেেস্টেরলের মাত্রা বেড়ে যায়। অথচ কোয়েলের ডিম নিঃসংকোচে যে কোনো বয়সের মানুষ অর্থাৎ বাচ্চা থেকে বৃদ্ধরা খেতে পারেন। এতে ক্ষতির কোনো কারণ নেই বরং নিয়মিত কোয়েলের ডিম খেলে দেহের প্রয়োজনীয় পুষ্টি চাহিদা পূরণ হয় এবং অনেক কঠিন রোগ থেকে আরোগ্য লাভও হতে পারে।

দেখতে সাদা ও বাদামি ছোপওয়ালা কোয়েলের ডিম মুরগীর ডিমের চেয়ে আকৃতিতে বেশ ছোট। বিশেষজ্ঞদের মতে, যাদের ডিম খেলে অ্যালার্জির সমস্যা হয় তারা কোয়েল পাখির ডিম খেতে পারেন।

আসুন জেনে নেই কোয়েল পাখির ডিম যেসব রোগ প্রতিরোধ করে-

১. কোয়েল পাখির ডিমে উচ্চ পরিমান পটাশিয়াম থাকায় হৃদরোগ, উচ্চ রক্তচাপ, আর্থাইটিস, স্ট্রোক, ক্যান্সার এবং হজমজনিত সমস্যা প্রতিরোধ করে।

২. বিশেষজ্ঞদের মতে, যাদের ডিম খেলে অ্যালার্জির সমস্যা হয় তারা কোয়েল পাখির ডিম খেতে পারেন।

৩. কোয়েলের ডিমে থাকা ভিটামিন বি বিপাকক্রিয়া বাড়ায়। সেই সঙ্গে হরমোন ও এনজাইমের কার্যকারিতা ঠিক রাখে। এছাড়া ভিটামিন এ এবং সি’য়ের সংক্রমণ রোগ সারাতে কাজ করে।

৪. শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে কোয়েলের ডিম খেতে পারেন।

৫. মস্তিষ্কের কার্যকারিতা বাড়ায়, শরীর থেকে টক্সিন দূর করে ও রক্ত বিশুদ্ধ করে।

৬. কোয়েলের ডিমে প্রচুর পরিমাণে আয়রন থাকে। যা রক্তে হিমোগ্লোবিনের মাত্রা বাড়ায়। এছাড়া এই ডিমে থাকা ভিটামিন এ দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে সাহায্য করে।

৭. মাইগ্রেন, হাইপারটেনশন, বিষন্নতা ও প্যানিক অ্যাটাকের জটিলতা কমায় কোয়েল পাখির ডিম।