ক্ষমতায় গেলে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ

প্রকাশিত: ৫:৪০ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৮, ২০১৮ | আপডেট: ৫:৪১:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৮, ২০১৮
ফাইল ছবি

অচিরেই আসছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচনী ইশতেহার। এরই মধ্যে প্রাথমিক খসড়া চূড়ান্ত হয়েছে। ঐক্যফ্রন্ট ক্ষমতায় গেলে দেশে কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বেসরকারি থাকবে না। ঐকফ্রন্টের নির্বাচনী ইশতেহারে এই প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, শিক্ষা ক্ষেত্রে কোনো বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থাকবে না। পর্যায়ক্রমে সব সরকারি করা হবে। বেসরকারি সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও শিক্ষকদের চাকরি পর্যায়ক্রমে জাতীয়করণ করা হবে।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে প্রণীত ইশতেহারে সরকার, সংসদ, রাজনীতি, অর্থনীতি, শিক্ষা, কৃষি, পররাষ্ট্রনীতিসহ সরকারের প্রতিটি সেক্টরকে সর্বাধিক গুরুত্ব দেয়া হয়েছে।

সুশাসন, স্বচ্ছতা ও স্ব অবস্থান- এ তিন অঙ্গীকারের মধ্যে দিয়ে নবধারার রাজনীতি ও সরকার গঠনের প্রতিশ্রুতি থাকছে ইশতেহারে। থাকছে নতুন নতুন চমক ও অঙ্গীকার। ‘জনগণ এ রাষ্ট্রের মালিক’- এ ধারণা সুপ্রতিষ্ঠিত করার নির্দেশনা সংবলিত ইশতেহারে সব মত ও পথ নিয়ে বাংলাদেশকে একটি রেইনবো ন্যাশন বা রংধনু জাতিতে পরিণত করার বিস্তারিত ঘোষণা থাকবে। গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে আঞ্চলিক নিরাপত্তা ও যোগাযোগ ব্যবস্থার ওপরও। ১ সপ্তাহের মধ্যে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের এ ইশতেহার চূড়ান্ত হতে পারে।

এ বিষয়ে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, নির্বাচনের জন্য আমাদের ইশতেহারের একটা ড্রাফট করা হয়েছে। ১ সপ্তাহের মধ্যে এটা চূড়ান্ত করা হবে।

সূত্র জানায়, এছাড়া জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের খসড়া ইশতেহারে ৫ প্রতিশ্রুতি এসেছে। খসড়ায় প্রস্তাবিত প্রতিশ্রুতিগুলোর মধ্যে রয়েছে- স্বাস্থ্য ব্যবস্থার উন্নয়ন, বেকারত্ব নিরসন, বিচার ব্যবস্থার সংস্কার, কৃষিতে ভর্তুকি, দ্রব্যমূল্য নির্ধারণ ও শ্রমিকদের মজুরি নির্ধারণ।