খাল কেটে কাতারকে সামরিক ঘাঁটি বানাবে সৌদি, ফেলবে পরমাণু বর্জ্য!

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:৪৪ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১, ২০১৮ | আপডেট: ১২:৪৪:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১, ২০১৮

টিবিটি সারাবিশ্বঃকাতারের সীমানা ঘিরে খাল খনন করে দেশটিকে মূল ভূখণ্ড থেকে বিচ্ছিন্ন করে একটি দ্বীপে পরিণত করার পরিকল্পনা এগিয়ে নেয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন একজন সৌদি কর্মকর্তা।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের জ্যেষ্ঠ উপদেষ্টা সউদ আল-কাতানি খাল খননের পরিকল্পনা নিয়ে শুক্রবার একটি টুইট করেন।

টুইটারে তিনি লেখেন, ‘আমি পূর্ব সালোয়া দ্বীপ প্রকল্প বাস্তবায়নের খুঁটিনাটি জানার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছি। এই ঐতিহাসিক প্রকল্প এই অঞ্চলের মানচিত্র পাল্টে দিবে।’

কাতারের কর্তৃপক্ষ এই বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে কোনো মন্তব্য দেয়নি।

কাতানি গত কয়েকমাস ধরেই টুইটারে এই প্রকল্পের কথা বলে আসছেন, কিন্তু শুক্রবারের টুইটে বিষয়টি সবচেয়ে স্পষ্টভাবে উল্লেখ করা হয়। সমালোচকরা এই প্রকল্পকে জনসংযোগের হাতিয়ার ও কাতারকে ভয় দেখানোর কৌশল বলে উড়িয়ে দিয়েছেন।

কাতার ‘সন্ত্রাসবাদে সমর্থন দিচ্ছে’ এই অভিযোগে সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন এবং মিশর ২০১৭ সালের জুনে দেশটির সঙ্গে সব কূটনৈতিক, বাণিজ্যিক এবং পরিবহন ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন করে।

যুক্তরাষ্ট্র ও কুয়েত মধ্যপ্রাচ্যের দেশ দু’টির বিরোধ মীমাংসায় মধ্যস্থতা করতে চাইলেও তা ফলপ্রসূ হয়নি।

এপ্রিল মাসে সরকারপন্থি ওয়েবসাইট সাবক সর্বপ্রথম এই খাল খনন প্রকল্পের কথা জানা যায়। অজ্ঞাতনামা সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে সাইটটি জানায়, সৌদি আরব কাতারের গোটা সীমান্ত ঘিরে ২০০ মিটার চওড়া এবং ২০ মিটার গভীর খালের পাশে একটি সামরিক ঘাঁটি ও পরমাণু বর্জ্য ফেলার জায়গা নির্মাণের পরিকল্পনা করছে। প্রকল্পটিতে প্রায় ৭৪৭ মিলিয়ন ডলার খরচ হবে।

এরপর জুন মাসে ‘মক্কা’ পত্রিকার একটি খবরে বলা হয়, রিয়াদ এই প্রকল্পের জন্য পাঁচটি প্রতিষ্ঠানের কাছে টেন্ডার আহ্বান করেছে এবং সেপ্টেম্বরে নির্বাচিত প্রতিষ্ঠানের নাম ঘোষণা করা হবে।