গাইবান্ধায় প্রাণ হারানো সেই ১৩ জনের পরিচয় মিলেছে

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:২০ অপরাহ্ণ, মে ২২, ২০২০ | আপডেট: ১২:২০:অপরাহ্ণ, মে ২২, ২০২০

একদিকে যখন মহামারী করোনাভাইরাস তাণ্ডব চালাচ্ছে, ঠিক অন্যদিকে ঈদের ছুটিতে ঝুঁকির মধ্যেও নাড়ীর টানে যে যেভাবে পারছেন বাড়ি ফিরছেন।

আর এই বাড়ি ফেরার পথেই ঘটেছে এক মর্মান্তিক ঘটনা। বৃহস্পতিবার (২১ মে) সকালে ঢাকা-রংপুর মহাসড়কের গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার জুনদহ এলাকায় রডবোঝাই ট্রাক উল্টে পুকুরে পড়ে ঘটনাস্থলেই ১৩ জনের মৃত্যু ঘটেছে।

জানা গেছে, লকডাউনের কারণে গণপরিবহন বন্ধ থাকায় ঈদের ছুটিতে রডবোঝাই ট্রাকের ওপর ত্রিপল বিছিয়ে ঢাকা থেকে রংপুরে যাচ্ছিলেন তারা। কিন্তু বিধি বাম!

ট্রাক উল্টে একসঙ্গে ১৩ জনের মৃত্যু হয়। এই দুর্ঘটনা সকালে ঘটলেও প্রায় ৫ ঘণ্টা পর পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা দুর্ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করেন। তাৎক্ষণিভাবে নিহতদের নাম পরিচয় না পাওয়া গেলেও একে একে মিলতে থাকে তাদের পরিচয়।

নিহতরা হলেন- রংপুর জেলার পীরগঞ্জ উপজেলার টেংরা কান্দর গ্রামের আব্দুস সামাদের ছেলে শামসুল আলম (৬০), একই গ্রামের সুমন মিয়ার ছেলে সোয়াইব (৭)।

তারা সম্পর্কে দাদা-নাতি। ভাষার পাড়া গ্রামের ইমদাদ হকের ছেলে আব্দুল হান্নান (১৮), বড় আলমপুর গ্রামের আব্দুল রাজ্জাকের ছেলে ইমরান (২২), শানেরহাট গ্রামের মকবুল হোসেনের ছেলে ইসরাত ওরফে রেলা (৩৫), তার ছেলে আকাশ (১৫), ওই গ্রামের ফুল মিয়ার ছেলে ইছাহাক খান (১৪), ইচা খানের ছেলে আল আমিন (১৭), কাউনিয়া উপজেলার আব্দুল মতিনের ছেলে শরিফুল ইসলাম (২৫), ভাষারপাড়া গ্রামের এমদাদুল হকের ছেলে হান্নান (১৮), একই গ্রামের আনারুল ইসলামের ছেলে মনিরুল ইসলাম (২০), কুড়িগ্রাম জেলার উলিপুর থানার কপুরা গ্রামের মহিউদ্দিনের ছেলে মিজানুর রহমান (২৭) ও গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার ছোট ভগবানপুর গ্রামের খলিলুর রহমানের ছেলে মহসিন আলী ওরফে মোতালেব (২৩)।

গাইবান্ধার পুলিশ সুপার তৌহিদুল ইসলাম বলেন, ধারণক্ষমতার অতিরিক্ত ওজনের রড নিয়ে ট্রাকটি ঢাকা থেকে রংপুরের উদ্দেশে যাচ্ছিল। ট্রাকের চালক গোপনে ঢাকা থেকে ১৩ জন যাত্রী পরিবহন করছিলেন।

রডের ওপর ত্রিপলের নিচে ১৩ জন যাত্রী ছিলেন। চালক নিয়ন্ত্রণ হারালে ট্রাকটি রাস্তার পাশে জমিতে উল্টে যায়। স্থানীয়দের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে ঘটনাস্থল থেকে ১৩ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।